ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা বলেছেন, সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে পদ্মা সেতু আজ দৃশ্যমান হয়েছে। সেতুতে ৪১তম স্প্যান সংযুক্তির মধ্য দিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবিকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মাধ্যমে ঢাকার সঙ্গে যুক্ত হলো এ অঞ্চলের ২৯টি জেলা। এটি সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় ও সাহসী নেতৃত্বের কারণে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনের অ্যালামনাই ফ্লোরে সমবেত হয়ে সেতুর পূর্ণ কাঠামো পাওয়ায় সংগঠনের সদস্যরা আনন্দ ও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে এসব মন্তব্য করেন।

নেতারা বলেন, সব প্রতিকূলতার বিপরীতে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী এ অসাধ্যকে অকৃত্রিম ভালোবাসা ও দেশাত্মবোধ দিয়ে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন। এর মাধ্যমে বাংলাদেশ আবার প্রমাণ করেছে, বর্তমান বিশ্ব বাস্তবতায় যেকোনো চ্যালেঞ্জ গ্রহণে বাংলাদেশ সক্ষম। পদ্মা সেতু বাঙালি জাতির জাতীয় জীবনে এখন শুধু একটি সেতু নয়, পুরো জাতির বিশ্বাস-ভিত্তি ও শক্তির প্রতীক। পদ্মা সেতুকে বাস্তবে রূপ দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান নেতারা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার, মহাসচিব রঞ্জন কর্মকার, অর্থ-সম্পাদক দেওয়ান রাশেদুল হাসান, যুগ্ম মহাসচিব আশরাফুল আলম মুকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আফজালুর রহমান বাবু, প্রচার ও যোগাযোগ সম্পাদক কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন, কার্যনির্বাহী সদস্য নাসির উদ্দিন মাহামুদ নান্টু, শেখ মোহাম্মদ সালাহ্‌ উদ্দিন, সালমা জাহান, সালেহা খাতুন স্নিগ্ধা, আমিনুল ইসলাম মাইকেল প্রমুখ।