ভাওয়াল এস্টেটের ৩৫৬ একর জমি বেদখলে। এর মধ্যে ঢাকা জেলায় বেদখলে থাকা জমির পরিমাণ ৩৪৯ দশমিক ১৫০৬ একর এবং গাজীপুর জেলায় ৬ দশমিক ৮৫ একর। গাজীপুরে বেদখল হওয়া জমির মধ্যে এক দশমিক ২৬ একর গাজীপুর সিটি করপোরেশনের দখলে। 

বৃহস্পতিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ভূমি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয় উপস্থাপিত প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। কমিটি পরের বৈঠকে দখলদারদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা দিতে বলেছে। 

কমিটির সভাপতি মকবুল হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে সদস্য ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, মনোরঞ্জন শীল গোপাল, শাহজাহান মিয়া, আনোয়ারুল আজীম আনার, নেছার আহমদ, উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম ও আমিনুল ইসলাম অংশ নেন।

মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সিএস রেকর্ডে ভাওয়াল এস্টেটের মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৩০ হাজার ৪২০ দশমিক ৯২৪১ একর। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে এক হাজার ৩৫ দশমিক ৫৩২১ একর, সাভারে ৪৮ দশমিক ৭৮ একর, কেরানীগঞ্জে ১৫২ দশমিক ৯১ একর, নারায়ণগঞ্জে ২২ দশমিক ২৩ একর, ময়মনসিংহে শূন্য দশমিক ১৩ একর এবং গাজীপুরে ২৯ হাজার ১৬১ দশমিক ৩৪২০ একর।

এই জমির মধ্যে জমিদারদের খাস দখলে ১৪১ দশমিক ৮৪ একর। বাকি ৩০ হাজার ২৭৯ দশমিক শূন্য ৭৮০ একর জমির মধ্যে গাজীপুরের প্রায় ২৪ হাজার একর জমি বন বিভাগের নামে রেকর্ডভুক্ত হয়, যা তাদের দখলে রয়েছে। অবশিষ্ট ছয় হাজার ২৯৯ দশমিক ৬৩৮৫ একর জমি এসএ ও আরএস রেকর্ডীয় ব্যক্তি এক নম্বর খাস খতিয়ানে এবং সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামে রেকর্ডভুক্ত, যা তাদের দখলে রয়েছে।

এর আগে গত ৩০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে ভাওয়াল এস্টেটের অবৈধ দখলদারদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা চাওয়া হয়েছিল। 

ওই বৈঠকে এস্টেটের জমির পরিমাণ নির্ধারণ ও তা দ্রুত উদ্ধারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ারও সুপারিশ করা হয়। এ ছাড়া ওইসব জমির ওপর আদালতে চলমান মামলাগুলো গুরুত্ব বিবেচনা করে তা দ্রুত নিষ্পত্তি করার সুপারিশ করা হয়।

বিষয় : জমি বেদখল ভাওয়াল এস্টেট

মন্তব্য করুন