জাকাত তহবিলের অর্থ আত্মসাতের মামলায় আমৃত্যু সাজাপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ফের ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত মুলতবি করেছেন আদালত। সোমবার এ মামলায় চার্জ শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। 

আসামিপক্ষ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না পাওয়ার দাবি করে সময় বাড়ানোর আবেদন করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার এক নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক সৈয়দা হোসনে আরা ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত এ মামলার শুনানি মুলতবি করেন। 

এদিন আসামি দেলওয়ার হোসাইন সাঈদীকে কাশিমপুর কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। এর আগে গত ৭ ডিসেম্বর এ মামলায় তাকে আদালতে হাজির করা হয়েছিল। 

এদিকে সাঈদীর করা এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বয়স, শারীরিক অবস্থা ও সামাজিক অবস্থান বিবেচনা করে তাকে প্রিজনভ্যানের পরিবর্তে মাইক্রোবাসে করে আনা-নেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

আদালতে সাঈদীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন- আব্দুস সোবহান তরফদার, মো. মুজাহিদুল ইসলাম শাহিন ও মতিউর রহমান আকন্দ। দুদকের পক্ষে ছিলেন- কৌসুলি মোশাররফ হোসেন কাজল। আসামিপক্ষের সময় আবেদনের বিরোধিতা করে আদালতে তিনি বলেন, মামলা দায়েরের পর প্রায় ১০ বছর পার হয়ে গেছে। এখনও তারা কাগজপত্র সংগ্রহ করতে পারেনি। এ কথা অবাস্তব। 

মামলার ছয় আসামির মধ্যে আবুল কালাম আজাদ ও আব্দুল হক পলাতক। অপর তিন আসামি জামিনে আছেন।

জাকাত তহবিলের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সাবেক পরিচালক (অর্থ ও হিসাব) আইয়ুব আলী চৌধুরী ২০১০ সালের ২৪ মে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় মামলাটি করেন। তদন্ত শেষে দুদকের সহকারী পরিচালক ওয়াজেদ আলী গাজী ২০১২ সালের ৩০ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। 

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আমৃত্যু সাজা নিয়ে জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী বর্তমানে কারাগারে আছেন।