কঙ্গোতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর আরেকটি নতুন সাফল্য অর্জন করেছে। প্রথম বারের মতো বিমান বাহিনী ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক কঙ্গোতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বৃহস্পতিবার রাতে এমআই-১৭এসএইচ হেলিকপ্টারের মাধ্যমে নাইট ভিশন প্রযুক্তির সাহায্যে মেডিকেল ইভাকুয়েশন মিশন সম্পন্ন করেছে।

বিমান বাহিনী কন্টিনজেন্ট ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক কঙ্গোর বুনিয়ার দূরবর্তী বেও নামক দুর্গম ক্যাম্প থেকে এই মেডিকেল ইভাকুয়েশন মিশন পরিচালনা করা হয়। শুক্রবার আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের একজন এফএআরডিসি সৈন্যের ব্যবহৃত অস্ত্রের বুলেটের আঘাতে ওই সৈন্য নিজেই গুরুতরভাবে আহত হলে জরুরি ভিত্তিতে তাকে চিকিৎসা সেবা প্রদানের জন্য এই মেডিকেল ইভাকুয়েশন মিশন পরিচালনা করা হয়। সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে (সূর্যাস্তের ৫০ মিনিট পর) বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর গ্রুপ ক্যাপ্টেন আব্বাস জিডি (পি) এর নেতৃত্বে এয়ার ক্রুদের একটি টিম বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর এমআই-১৭এসএইচ হেলিকপ্টার নিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশে উড্ডয়ন করেন এবং মিশনটি সফলভাবে সম্পন্ন করে রাত ৭টা ৫৫ মিনিটে ফিরে আসে। এই মিশন সুসম্পন্ন করার জন্য জাতিসংঘ কর্তৃক বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর পেশাদারিত্বের ভূয়সী প্রশংসা করা হয়।

উল্লেখ্য, গ্রুপ ক্যাপ্টেন আবু সাঈদ মেহবুব খান জিডি (পি) এর নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর কন্টিনজেন্ট ব্যান এয়ার-১৮ ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক কঙ্গোতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োজিত আছেন।