স্বাধীনতা সংগ্রাম ও সশস্ত্র যুদ্ধের অন্যতম প্রধান সংগঠক সিরাজুল আলম খানকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার রাতে প্রথমে তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে হাই ডিপেনডেন্সি ইউনিটে (এইচডিইউ) ভর্তি করা হয়।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) যুগ্ম সাধারণ সম্পাদ ও ঢাকা মহানগরের সমন্বয়ক কামাল উদ্দীন পাটোয়ারী সমকালকে জানান, রাত ৯টার দিকে রাজধানীর কলাবাগানের নিজ বাসায় বুকে ব্যথা ও অস্থির বোধ করেন সিরাজুল আলম খান। দ্রুত তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর বলেন, তার আইসিইউ লাগতে পারে। এরপর তাকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়।

তিনি আরও জানান, সিরাজুল আলম খানের শ্বাসকষ্ট ও ফুসফুসে প্রদাহ আছে। হার্টেও সমস্যা আছে। বর্তমানে তাকে ঢাকা মেডিকেলের এইচডিইউ'তে রাখা হইছে।

৮০ বছর  বয়সী সিরাজুল আলম খান উচ্চ রক্তচাপসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন। এর আগে দু'বার তার হার্টের অপারেশন হয়েছে। এছাড়া কোমর ভেঙে যাওয়ায় হিপ ট্রান্সপ্লান্ট করতে হয়েছে।

গত শতাব্দীর ষাটের দশকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের লড়াইয়ে ছাত্রলীগের 'নিউক্লিয়াস'-এর উদ্যোক্তা ছিলেন সিরাজুল আলম খান। তাকে 'দাদা ভাই' নামে ডাকত সবাই। 

সিরাজুল আলম খান স্বাধীনতার পর আওয়ামী লীগ ভেঙে জাসদ গঠনের উদ্যোক্তা ছিলেন। অনেক বছর ধরে তিনি জনসম্মুখে আসেন না, বক্তৃতা-বিবৃতিও দেন না। আড়ালে থাকার জন্য তাকে ঘিরে সৃষ্টি হয়েছে রহস্য।


বিষয় : সিরাজুল আলম খান

মন্তব্য করুন