সমকাল পরিবারের ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন কথাসাহিত্যে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক ইমতিয়ার শামীম। তিনি সমকালের সহকারী সম্পাদক। তার পুরস্কার পাওয়াকে সমকাল পরিবারের সদস্যরা আনন্দ ও গর্বের বলেছেন। 

বুধবার রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলে সমকাল কার্যালয়ে সংবর্ধনা পেয়ে ইমতিয়ার শামীম বলেছেন, বাংলা একাডেমির পুরস্কার ও সহকর্মীদের ভালোবাসায় তিনি অভিভূত।

সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফির সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ইমতিয়ার শামীমকে অভিনন্দন জানান সহকর্মীরা।

উপ-সম্পাদক আবু সাঈদ খান, সহযোগী সম্পাদক সবুজ ইউনুস, বার্তা সম্পাদক মশিউর রহমান টিপু, নগর সম্পাদক শাহেদ চৌধুরী, ফিচার সম্পাদক মাহবুব আজীজ, প্রধান প্রতিবেদক লোটন একরাম, মহাব্যবস্থাপক (মার্কোটিং) ফরিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত বার্তা সম্পাদক তপন দাশ, সহকারী সম্পাদক শেখ রোকন, শিফট ইনচার্জ মুজিবর রহমান প্রমুখ ইমতিয়ার শামীমকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তৃতা করেন। তারা নিভৃতচারী, মৃদুভাষী সাহিত্যিক-সাংবাদিক ইমতিয়ার শামীমের দীর্ঘ কর্মময় ও সৃষ্টিশীল জীবন কামনা করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সমকালের সহকারী সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম আবেদ।

সোমবার বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার-২০২০ বিজয়ী হিসেবে ইমতিয়ার শামীমসহ ১০ কবি-সাহিত্যিকের নাম ঘোষণা করা হয়। ইমতিয়ার শামীমের এ অর্জনকে সমকাল পরিবারের অর্জন বলে আখ্যা দিয়েছেন মুস্তাফিজ শফি।

তিনি বলেন, ইমতিয়ার শামীমের এই প্রাপ্তিতে সমকাল পরিবারের প্রত্যেক সদস্য আনন্দিত, গর্বিত। তিনি রাজনীতি ও সমাজ সচেতন লেখক। বাংলা একাডেমির মতো মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার তাকে আরও লেখালেখির অনুপ্রেরণা জোগাবে। ইমতিয়ার শামীমকে পুরস্কৃত করে বাংলা একাডেমিও সম্মানিত হয়েছে। তারা যোগ্যতম সাহিত্যিককে বেছে নিয়েছে পুরস্কারের জন্য।

ইমতিয়ার শামীম বলেন, তাকে সমকাল পরিবার যে সম্মান জানিয়েছে, তাতে তিনি অভিভূত। এর মাধ্যমে সমকাল পরিবারের সংহতি প্রকাশ পেয়েছে। বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্তি তার পরিবারের জন্য যেমন আনন্দের, সমকাল পরিবারের কাছেও তাই। সমকাল সুখে-দুঃখে তার পাশে ছিল। তিনিও সমকালের সঙ্গে আছেন, থাকবেন।

বাংলা একাডেমি জানিয়েছে, বইমেলা উদ্বোধনের দিন প্রধানমন্ত্রী ১০ লেখকের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন।