সিকদার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান ও বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নুল হক সিকদার আর নেই। বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের একটি হাসপাতালে তিনি মারা যান (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)। তিনি বেসরকারি খাতের প্রথম প্রজন্মের ন্যাশনাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান ছিলেন। তার বাড়ি শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার মধুপুর গ্রামে। তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর। তিনি স্ত্রী-সন্তানসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার মেয়ে পারভীন হক সিকদার সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের এমপি।

জয়নুল হক সিকদারের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। পৃথক শোকবার্তায় তারা মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশের উজ্জ্বলতম শিল্প উদ্যোক্তা জয়নুল হক সিকদার ১৯৩০ সালের ১২ আগস্ট ভারতের আসামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৪৭ সালে দেশভাগের সময় পরিবারের সঙ্গে বাংলাদেশে চলে আসেন। জয়নুল হক সিকদার বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার অন্যতম অংশীদার। দীর্ঘ সাত দশকের বেশি সময় ধরে তিনি দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আবাসন, পর্যটন, অর্থনীতি, কর্মসংস্থানসহ বিভিন্ন খাতে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। সরাসরি প্রায় ২০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর থেকে বিচার কার্যক্রম শুরু হওয়া পর্যন্ত তিনি তার প্রিয় 'মুজিব ভাইয়ের' প্রতি ভালোবাসা থেকে খাটে না ঘুমিয়ে ঘরের মেঝেতেই ঘুমাতেন।

শিল্প প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি অসংখ্য উদ্যোক্তা গড়ে তুলেছেন তিনি। স্কুল-কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা; দারিদ্র্য দূরীকরণ এবং সমাজে পিছিয়ে পড়া প্রান্তিক মানুষের কল্যাণে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন তিনি।

১৯৪৫ সাল থেকে বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত ও ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে তার পাশে থেকেছেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার চার দিন পর ১৯ আগস্ট রায়েরবাজারে কুলখানির আয়োজন করেন তিনি। এ জন্য সে সময় সামরিক বাহিনীর গোয়েন্দা সংস্থা তাকে নানাভাবে হয়রানি করে। এমনকি ওই সময় তাকে জেলও খাটতে হয়েছে।

তার মৃত্যুতে আরও শোক জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ১৪ দলের সমন্বয়ক-মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপি, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এমপি, ডেপুটি স্পিকার ড. ফজলে রাব্বী মিয়া, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতি-ঢাকার সভাপতি মোজাম্মেল হক চঞ্চল, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান, ঢাকাস্থ নড়িয়া পেশাজীবী পরিষদের সভাপতি আবদুল্যাহ হারুন পাশা, সাধারণ সম্পাদক ডা. ফারুক হোসেন শেখ প্রমুখ।

বিষয় : সিকদার গ্রুপের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার

মন্তব্য করুন