ইতিহাসবিদ ও সাহিত্যিক অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন বলেছেন, 'জীবনে যা লিখেছি ক্রোধ থেকে লিখেছি। আমাদের সময়টি ছিল ক্রোধের, দ্রোহের, যন্ত্রণার ও প্রেমের। এই কঠিন সময়ে ভালোবাসার বড্ড অভাব হয়। তবে আমি সবার অনেক ভালোবাসা পেয়েছি।'

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে 'বাংলা ভাষার ইতিহাস চর্চা: মুনতাসীর মামুনের বিচিত্র ভুবন' শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন। দিনব্যাপী এ সেমিনারের আয়োজন করে হেরিটেজ আর্কাইভস ও বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মীলনী।

মুনতাসীর মামুন বলেন, 'সম্মাননার জন্য আমি কোনো কাজ করিনি। মরণোত্তর পুরস্কার তিরস্কারস্বরূপ। আমি অনেক ভাগ্যবান, কারণ আমি জীবিত অবস্থায় সম্মাননা পেয়েছি। আমি আজ গর্বিত। জীবদ্দশায় আমাকে নিয়ে আয়োজন হয়, সেটা আমি দেখে যেতে পারছি। কর্মেই মুক্তি খুঁজেছি, কর্মেই আনন্দ খুঁজেছি।'

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সাজ্জাদ বকুলের সঞ্চালনায় সেমিনারে বক্তব্য দেন হেরিটেজ আর্কাইভসের প্রতিষ্ঠাতা ড. মাহাবুবর রহমান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক এবং বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মীলনের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী শহীদ কাদের, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন রাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আবদুস সালাম, প্রক্টর ও ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক লুৎফর রহমান, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক আজিজুর রহমান প্রমুখ।