রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ দেশের সেবা এবং জনগণের কল্যাণ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে একনিষ্ঠভাবে কাজ করার জন্য বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর (বিএএফ) সদস্যদের নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, 'এ দেশের সন্তান হিসেবে, আপনারাও দেশের মানুষের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্নার সমান অংশীদার। তাই পেশাদারিত্বের নৈপুণ্য বজায় রাখার পাশাপাশি জনগণের প্রয়োজনে নিজ নিজ অবস্থান থেকে আপনাদের কাজ করতে হবে।'

সোমবার বিকেলে বঙ্গভবন থেকে এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর বরিশাল রাডার ইউনিট এবং হেলিকপ্টার সিমুলেটর ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। খবর বাসসের।

বরিশালে বিমানবাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতিতে রাষ্ট্রপতির পক্ষে বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত বরিশাল রাডার ইউনিট এবং হেলিকপ্টার সিমুলেটর ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের ফলক উন্মোচন করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, 'মনে রাখবেন, পরিশ্রম ও সততার কোনো বিকল্প নেই। সুদৃঢ় মনোবল, কঠোর পরিশ্রম, সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার ও দেশপ্রেমই আপনাদের পেশাগত জীবনে উৎকর্ষের শিখরে পৌঁছে দিতে পারে।'

তিনি বলেন, পূর্বসূরিদের আত্মত্যাগের স্বার্থকতা আসবে আপনাদের একনিষ্ঠ দেশপ্রেম ও কর্তব্যনিষ্ঠার মাধ্যমে। রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ এখন সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। একইসঙ্গে সশস্ত্র বাহিনীর পরিসর ও আকারও ধীরে ধীরে বর্ধিত হচ্ছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিমানবাহিনীকে একটি অত্যাধুনিক ও চৌকস বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে নতুন নতুন বিমান ঘাঁটি স্থাপন এবং যুদ্ধবিমান, পরিবহন বিমান, হেলিকপ্টার, এয়ার ডিফেন্স রাডার, ক্ষেপণাস্ত্র ও অন্যান্য যুদ্ধ উপকরণ সংযোজন করে চলেছেন। তিনি বলেন, হেলিকপ্টার সিমুলেটর ট্রেনিং ইনস্টিটিউট স্থাপন ভবিষ্যতে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীকে আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে।

বিষয় : রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ বিমানবাহিনী বিএএফ

মন্তব্য করুন