শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিবেশ-পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে কিনা, তা পর্যালোচনা করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

সোমবার দুপুরে মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান সচিব। এবারও মন্ত্রিসভার বৈঠকটি ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে প্রায় এক বছর ধরে বন্ধ রয়েছে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। এ অবস্থায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিবেশ-পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে কিনা, তা পর্যালোচনা করার প্রয়োজন রয়েছে।

আগামী পাঁচ থেকে ছয় দিনের মধ্যেই আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা করে বিষয়টি পর্যালোচনা করা হবে বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, প্রধানমন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর ১৭ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ছুটি ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকে বেশ কয়েক দফায় বেড়ে এসেছে ছুটি। সর্বশেষ আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা দেওয়া হয়।

কিন্তু ইতোমধ্যেই বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আবাসিক হল খুলে দেওয়ার দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন। সোমবারও হল খোলার দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন। এমনকি দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে ঢুকেও পড়েছেন শিক্ষার্থীরা।