ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অধিভুক্ত সাত কলেজের পরীক্ষাগুলো আগের রুটিনেই নেওয়া হবে। শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মুখে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

বুধবার বিকেলে শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা উপমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের উপস্থিতিতে জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয় বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এমএ খায়ের।

তবে পরীক্ষাগুলো শর্তসাপেক্ষে অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা চলাকালে হোস্টেল খোলা হবে না এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে সবাইকে।

ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, সাত কলেজের চলমান পরীক্ষাগুলো অব্যাহত থাকবে। এরমধ্যে মঙ্গলবার এবং বুধবারের যে পরীক্ষাগুলো রয়ে গেছে, সেগুলোর তারিখ পরে জানিয়ে দেওয়া হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে এর আগে মঙ্গলবার বিকেলে সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক ও অধ্যক্ষদের এক সভায় সাত কলেজের সব পরীক্ষা ২৪ মে পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছিল।

পরে সন্ধ্যায় তাৎক্ষণিকভাবে পরীক্ষার স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার এবং হল-ক্যাম্পাস খুলে দেওয়ার দাবিতে রাজধানীর নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। বুধবারও তারা গুরুত্বপূর্ণ ওই মোড় অবরোধ করে রাখলে আশপাশের সড়কগুলোতে যানজটের সৃষ্টি হয়।

শিক্ষামন্ত্রীর এ ঘোষণার পর বিকেল সোয়া ৪টার দিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা 'জিতিল রে জিতিল, সাত কলেজ জিতিল' স্লোগান দিতে দিতে নীলক্ষেত মোড় ও সায়েন্স ল্যাব মোড়ের রাস্তা ত্যাগ করেন। তারা উল্লাস করতে করতে যে যার মতো ফিরে যান।

মন্তব্য করুন