দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগে বিমান বাংলাদেশের এয়ারলাইন্সের ১৭ সিবিএ নেতার বিরুদ্ধে দুদকের তদন্তের নথি তলব করেছেন হাইকোর্ট। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে দুদককে তা আদালতে দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) ডাকে সাড়া না দেওয়ায় বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের সমন্বয়ে হাইকোর্টের (ভার্চুয়াল) বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। আগামী ৯ মার্চ এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য রাখা হয়।

১৭ সিবিএ নেতা হলেন: বিমানের তখনকার সিবিএ সভাপতি মসিকুর রহমান, সহসভাপতি আজাহারুল ইমাম মজুমদার, আনোয়ার হোসেন, ইউনুস খান, সাধারণ সম্পাদক মনতাসার রহমান, সহসাধারণ সম্পাদক রুবেল চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল আলম, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম, অর্থ সম্পাদক আতিকুর রহমান, অফিস সম্পাদক হারুনর রশিদ, প্রকাশনা সম্পাদক আবদুল বারি, সাংস্কৃতিক সম্পাদক ফিরোজুল ইসলাম, সমাজকল্যাণ সম্পাদক আবদুস সোবহান, নারীবিষয়ক সম্পাদক আসমা খানম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক গোলাম কায়সার আহমেদ, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আবদুল জব্বার ও আবদুল আজিজ।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিনউদ্দিন মানিক।

পরে মনজিল মোরসেদ জানান, ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ বিমানের ১৭ সিবিএ নেতার বিরুদ্ধে দুর্নীতির বিষয়ে তদন্তের জন্য দুদক নোটিশ দেয়। কিন্তু তারা হাজির হতে অস্বীকার করেন। সে পরিপ্রেক্ষিতে দুদকের পক্ষে আর কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এ ইস্যুতে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদন যুক্ত করে জনস্বার্থে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) রিট পিটিশন দায়ের করলে একই বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট রুল জারি করে দুদকের পদক্ষেপে নিষ্ফ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চান।

এরপর বিমানের ওই ১৭ সিবিএ নেতার বিষয়ে দুদক কী পদক্ষেপ নিয়েছে বা আদৌ কোনো পদক্ষেপ নিয়েছিল কিনা, সাত বছর পর গত ২৮ জানুয়ারি তা জানতে চান হাইকোর্ট।

মনজিল মোরসেদ বলেন, ওই রুল শুনানির জন্য বৃহস্পতিবার দিন ধার্য ছিল। দুদক আইন অনুযায়ী, যদি কোনো ব্যক্তি কোনো নোটিশের ব্যাপারে পদক্ষেপ না নেয়, সে কারণে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার বিধান থাকলেও দুদকের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এরই ধারাবাহিকতায় আদালত বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন।