চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে শিশু নির্যাতন উদ্বেগজনকভাবে বৃদ্ধি পায় বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। এ মাসে ১৮৩ কন্যাশিশু ও ১২৫ নারী সহিংসতার শিকার হয়েছেন।

মঙ্গলবার মহিলা পরিষদের লিগ্যাল এইড উপপরিষদে সংরক্ষিত ১৩টি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে প্রতিবেদন প্রকাশ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডা. মালেকা বানু।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, নির্যাতনের শিকার ৩০৮ নারী ও কন্যাশিশুর মধ্যে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১২১ জন। এদের মধ্যে ৬৪ কন্যাশিশু ধর্ষণের শিকার ও ১৩ কন্যাশিশু দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়। চার শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া ১৩ শিশু ও তিন নারী ধর্ষণচেষ্টার শিকার হয়েছেন। এ সময় দুই কন্যাশিশু ও দুই নারী শ্নীলতাহানির শিকার হন। পাঁচ শিশুসহ যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছেন আটজন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ সময়ে অ্যাসিড নিক্ষেপের শিকার হয়েছেন দু'জন। তাদের মধ্যে এক শিশু রয়েছে। ১৩টি শিশু অপহরণের শিকার হয়েছে। ৯ শিশুসহ ১২ জনকে হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া চারজনকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, যৌতুকের বলি হয়েছেন ৯ জন, তাদের পাঁচজনকে এ কারণে হত্যা হয়েছে। এ সময় শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ১৭ নারী ও ৯ শিশু। এ সময়ে নির্যাতনের কারণে আত্মহত্যা করেছেন ১১ শিশুসহ ১৮ জন।

মন্তব্য করুন