বিয়ে ও বিয়ে বিচ্ছেদের (ডিভোর্সের) তথ্য ডিজিটালাইজেশনের পদক্ষেপ নিতে নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করা হয়েছে। ক্রিকেটার নাসিরের স্ত্রী তামিমা সুলতানার আগের স্বামী রাকিব হাসানসহ তিন ব্যক্তি ও একটি সংগঠন এ রিট আবেদন করেছেন।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের সংশ্নিষ্ট শাখায় মানবাধিকার সংগঠন এইড ফর ম্যান ফাউন্ডেশনের পক্ষে এ রিটটি দায়ের করা হয়। রিটকারী সংগঠনের আইনজীবী ইশরাত হাসান সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

রিট আবেদনে আইন সচিব, তথ্য ও প্রযুক্তি সচিব এবং ধর্ম সচিবকে বিবাদী করা হয়েছে।

রিট আবেদনে বলা হয়, বিবাহ ও বিবাহ বিচ্ছেদের রেজিস্ট্রেশনের আইনগত বিধান থাকলেও তা ডিজিটাল না করার ফলে অসংখ্য প্রতারণার ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া বিয়ে গোপন রেখে ডিভোর্স না দিয়ে বিয়ের ঘটনাও ঘটছে। ফলে সন্তানের বাবার পরিচয় নিয়েও জটিলতা দেখা যাচ্ছে। বিবাহ সংক্রান্ত অপরাধ বেড়ে অসংখ্য মামলার জন্ম নিচ্ছে। তাই বিয়ে ও ডিভোর্স রেজিস্ট্রেশন ডিজিটাল হওয়া একান্ত আবশ্যক। যাতে যেকোনো ব্যক্তি বিয়ে বা ডিভোর্স ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর সার্চ দিয়ে তথ্য করতে পারে। এতে করে সাধারণ মানুষ প্রতারণার হাত থেকেও রক্ষা পাবে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও কেবিন ক্রু তামিমা সুলতানা তাম্মি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। কিন্ত এর পরপরই তাম্মীর প্রথম স্বামী রাকিব হাসান অভিযোগ করেন, তাকে ডির্ভোস না দিয়েই তাম্মী ক্রিকেটার নাসিরের সঙ্গে দ্বিতীয় বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন মহলে বিয়ের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেয়। এরপর ২২ ফেব্রুয়ারি বিয়ে ও ডিভোর্স ডিজিটালাইজেশন করতে তাম্মির প্রথম স্বামী রাকিব মানবাধিকার সংগঠন এইড ফর ম্যান ফাউন্ডেশনের পক্ষে সরকারের সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোকে আইনি নোটিশ পাঠান। ওই নোটিশের জবাব না পাওয়ায় হাইকোর্টে প্রতিকার চেয়ে এ রিটটি দায়ের করেন তিনি।