বাংলাদেশের স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিতে 'ডিসেন্ট্রালাইজড ইলেকট্রিফিকেশন, নেটওয়ার্ক ইন্টারকানেকশন অ্যান্ড লোকাল পাওয়ার মার্কেটস' শীর্ষক মাইক্রোএনার্জি সিস্টেম (এমইএস) ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স-২০২১ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত ২ থেকে ৪ মার্চ জুম মিটিংয়ে অনুষ্ঠিত হওয়া এই কনফারেন্সের আয়োজন করে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির গ্র্যাজুয়েট স্কুল অফ ম্যানেজমেন্ট (জিএসএম), জার্মানির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি বার্লিন (টিইউ), যুক্তরাষ্ট্রের কার্নেগি মেলন ইউনিভার্সিটি এবং প্রখ্যাত গবেষণা জার্নাল ইকোনমিক্স অফ এনার্জি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট পলিসি।

তিনদিনের আন্তর্জাতিক এই কনফারেন্সের ২০টি সেশনে বাংলাদেশসহ ৪০টিরও বেশি দেশের খ্যাতনামা বিদ্যুৎ-জ্বালানি-পরিবেশবিষয়ক গবেষক, নীতি-নির্ধারক ও পেশাজীবী অংশগ্রহণ করেন।

আন্তর্জাতিক এই কনফারেন্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের উন্নয়নের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ভিনসেন্ট চ্যাং, টিইউ বার্লিন এর প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টিয়ান থমসেন, জার্মানির সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও এনার্জি কমিশনার ফর আফ্রিকা বারবেল হুন এবং কার্নেগি মেলন ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ভ্যালেরি কারপ্লাস।

প্রফেসর ভিনসেন্ট চ্যাং বলেন, 'দারিদ্র্যের মতো অনেক সমস্যার সম্মুখীন হলেও বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের মডেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। বাংলাদেশ এখন শ্রমঘন অর্থনীতি থেকে জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতির পথে যাত্রা শুরু করেছে। আমরা বিশ্বাস, এই রূপান্তরকালে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষা খাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।‌'

স্বাধীনতার মাত্র পাঁচ দশকের মধ্যে শক্তিশালী অর্থনীতির দেশে পরিণত হওয়ায় বাংলাদেশের প্রশংসা করেন আলোচকবৃন্দ। এ সময় পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদার করে মানসম্পন্ন গবেষণার ক্ষেত্রে একে অপরকে সর্বোচ্চ সহযোগিতার আশ্বাস দেন টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি বার্লিন ও ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির দুই উপাচার্য। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি