দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু সারাজীবন অন্যায়, অবিচারে বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তার জীবনব্যাপী অবদানের এখনও সঠিকভাবে মূল্যায়ন করা হয়নি। যতো দিন যাবে, ততোই জাতির পিতার সঠিক মূল্যায়ন হতে থাকবে।'

বুধবার দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

আলোচনা সভার শুরুতেই দুদক চেয়ারম্যান বঙ্গবন্ধু, বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের শহীদদের এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী সব শহীদ ও সম্ভ্রম হারানো মা-বোনদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। একই সঙ্গে শহীদদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন তিনি।

মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ বলেন, 'বঙ্গবন্ধু উপলব্ধি করেছিলেন, দেশ স্বাধীন না হলে এই অঞ্চলের উন্নয়ন হবে না। এখানেই তার দূরদর্শিতা। উন্নয়নের অভিযাত্রায় সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া ও মালয়শিয়ার মতো বাংলাদেশও বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে যাত্রা শুরু করেছিল। তাকে হত্যা করা না হলে বাংলাদেশ আজ ওইসব দেশের কাতারেই থাকতো।'

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর গোটা জীবনে তার বিরুদ্ধে শত্রুরাও দুর্নীতির অভিযোগ করতে পারেনি। সাহস আর চারিত্রিক দৃঢ়তার কারণেই অজপাড়াগাঁয়ের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, অনগ্রসর অঞ্চল থেকে বঙ্গবন্ধু এই পর্যায়ে উঠে এসেছিলেন।'

সভায় দুদক কমিশনার ড. মো. মোজাম্মেল হক খান বলেন, ''স্বাধীনতার আগেই এই ভূখণ্ডের নাম বাংলাদেশ বলে উল্লেখ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। জাতীয় সংগীতের জন্য 'আমার সোনার বাংলা' গাটিও তিনি স্বাধীনতার আগেই নির্ধারণ করে রেখেছিলেন।'' 

কমিশনার মো. জহুরুল হক বলেন, ''জাতির পিতা দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতা ছিলেন বলেই ১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ আইটিইউ'র সদস্য পদ গ্রহণ করে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের ভিত্তি তিনিই স্থাপন করে গেছেন। তার সরকারই ১৯৭৫ সালে বেতবুনিয়ায় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র স্থাপন করেছিল।'' 

দুদক সচিব ড. মোহা. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার বলেন, 'বঙ্গবন্ধু কোনোদিন অন্যায়কে মেনে নেননি। সব সময় অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় তিনি খোকা থেকে শেখ মুজিব, শেখ মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধু থেকে জাতির পিতা হয়েছেন।'

দুদক মহাপিরচালক মো. জহির রায়হানের সঞ্চালানায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- দুদক মহাপিরচালক মো. রেজানুর রহমান, দুদক পরিচালক মো. মনিরুজ্জামান খান, দুদকের ময়মনসিংহ বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মো. কামরুল আহসান, দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় (সজেকা) রাজশাহীর উপ-পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।