ভারত প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে যে নীতিতে চলে, সেই নীতির আওতায়ও বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। শনিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে এ কথা বলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী এক টুইট বার্তায় এ কথা জানিয়েছেন।

এর আগে ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হয়। শীর্ষ এ বৈঠকে কয়েকটি সমঝোতা স্মারক সই ও দুই দেশের বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার মাধ্যমে বৈঠক শেষ হয়। খবর এএনআইয়ের

অরিন্দম বাগচী টুইটে বলেন, ভারতের ‘প্রতিবেশী আগে’ নীতিমালার মধ্যেও সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে মিলিত হয়েছেন। এ বিষয়টিসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়েছে দুই দেশের সরকারপ্রধানের মধ্যে।

তিনি বলেন, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও মজবুত হচ্ছে। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের স্বাস্থ্য, বাণিজ্য, সংযোগ, বিদ্যুৎ, উন্নয়ন সহযোগিতা এবং আরও অনেক ক্ষেত্রে অর্জনের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা করেছেন।

এর আগে শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ওড়াকান্দি মন্দির পরিদর্শন করেন এবং এক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। সমাবেশে নরেন্দ্র মোদি বলেন, ভারত এবং বাংলাদেশ উভয়ই তাদের নিজস্ব অগ্রগতির মাধ্যমে বিশ্বের অগ্রগতি দেখতে চায়। উভয় জাতি বিশ্বে অস্থিতিশীলতা, সন্ত্রাস ও অশান্তির পরিবর্তে  স্থিতিশীলতা, ভালোবাসা এবং শান্তি দেখতে চায়।

এএনআইয়ের খবরে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশ সফর করছেন। তিনি শুক্রবার দেশটির স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকা পৌঁছান।