হেফাজতে ইসলামের আরেক নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার নাম মাওলানা কোরবান আলী কাসেমী। তিনি বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব এবং হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরের সহসভাপতি।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর বাসাবোর বাসা থেকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ গ্রেপ্তার করে তাকে। গ্রেপ্তারের পর তাকে মিন্টোরোডে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়। বুধবার আদালতে হাজির করানো হবে হেফাজতের এই নেতাকে।

এ নিয়ে হেফাজতে ইসলামের ১২ জন কেন্দ্রীয়  নেতাকে গ্রেপ্তার করা হল। তবে সম্প্রতি সহিংসতার ঘটনায় ২৬ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত সারাদেশে প্রায় ৫শ’ হেফাজত, বিএনপি ও জামায়াত নেতাকর্মী গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম জানিয়েছেন, ২০১৩ সালের ৫ মে মতিঝিলে সহিংসতার ঘটনার মামলায় কোরবান আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ডিবির এক কর্মকর্তা জানান, সম্প্রতি বায়তুল মোকাররম মসজিদে সহিংসতায়ও কোরবান আলীর জড়িত থাকার তথ্য রয়েছে ডিবির কাছে। বুধবার তাকে আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করা হতে পারে।

এর আগে রোববার হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সোমবার তাকে সাত দিনের রিমান্ড নেওয়া হয়েছে। ডিবি কার্যালয়ে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তাকে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশে সফরবিরোধী বিক্ষোভ সমাবেশের নামে সম্প্রতি ঢাকা, চট্টগ্রাম ও ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলাম সহিংসতা চালায়। তাদের সঙ্গে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। ঘটে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। এসব ঘটনায় ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়। এসব মামলায় পুলিশ গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রেখেছে।