হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হককে এবার নারায়ণগঞ্জে নাশকতার ঘটনায় দায়ের মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখাচ্ছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি।  

মঙ্গলবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ তথ্য জানিয়েছেন সিআইডি প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান।

মোহাম্মদপুর থানার একটি মামলায় গত রোববার পুলিশ ধর্মভিত্তিক সংগঠন হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরের মহাসচিব মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করে। পরের দিন তাকে রিমান্ডে নেওয়া হয়। ওই নেতা বর্তমানে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হেফাজতে রয়েছেন।

মঙ্গলবার সিআইডি প্রধান মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, নারায়ণগঞ্জে তাণ্ডবের ঘটনায় দায়ের করা একটি মামলায় প্রাথমিক তদন্তে হেফাজত নেতা মামুনুল হকের সংশ্নিষ্টতা পেয়েছে সিআইডি। তিনি একটি মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে রিমান্ডে আছেন। রিমান্ড শেষ হলে তাকে নারায়ণগঞ্জের মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখিয়ে রিমান্ড আবেদন করা হবে।

সিআইডি প্রধান বলেন, হেফাজতে ইসলামের বিরুদ্ধে দায়ের করা ২৩টি মামলার তদন্ত দায়িত্ব পেয়েছে সিআইডি। প্রাথমিকভাবে নারায়ণগঞ্জে দায়ের করা মামলায় মামুনুল হকের সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলেও সিআইডি সব মামলা খতিয়ে দেখছে। যদি অন্য কোনো মামলাতেও তার সম্পৃক্ততা মেলে তাহলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে। সিআইডির একাধিক টিম এ নিয়ে কাজ করছে।

এক প্রশ্নের জবাবে মাহবুবুর রহমান বলেন, সব মামলায় প্রাথমিক তদন্তে তিন ধরনের লোকের সংশ্নিষ্টতা পাওয়া যাচ্ছে। একটি গ্রুপ উপস্থিত থেকেছে, অন্য গ্রুপ অনুপস্থিত থাকলেও ইন্ধন দিয়েছে, অপর গ্রুপ দুস্কর্মে সহযোগিতা করেছে। তদন্তের স্বার্থে এখনই তাদের নাম বলা যাচ্ছে না।

সিআইডির তদন্ত করা ২৩টি মামলার মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৫টি, নারায়ণগঞ্জে দুটি, কিশোরগঞ্জে দুটি, চট্টগ্রামে দুটি ও মুন্সীগঞ্জে দুটি মামলা রয়েছে। এসব মামলা হত্যা, বিস্ফোরক, নাশকতাসহ সন্ত্রাসবিরোধী আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা হয়েছে।




মন্তব্য করুন