ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী হাফিজুর রহমানের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে এর সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট (মার্কসবাদী)। সোমবার ফ্রন্টের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিকী ও সাধারণ সম্পাদক প্রগতি বর্মণ তমা এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, এটা কোনো স্বাভাবিক ঘটনা নয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এই রকম একটা ঘটনা ঘটেছে অথচ প্রক্টর-ভিসি কিছুই জানেন না এরকম হতে পারে না। আবার পুলিশও এ ঘটনা জানলেও এবং প্রথম থেকে এ ঘটনার সাথে থাকলেও ( দু্ইজন কনস্টেবল তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়) কেন তৎক্ষনাৎ ব্যবস্থা নিল না এবং এটা ‘আত্মহত্যা’ কি না তারও কোনো তদন্ত না করে লাশ মর্গে পাঠিয়ে দিল এবং সেখানে এক সপ্তাহ ধরে পঁচলো।

তারা বলেন, ক্যাম্পাসে প্রচুর সিসিটিভি ক্যামেরা থাকা সত্ত্বেও পুলিশ এখন পর্যন্ত কোনো সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেনি। এটা শুধু দায়িত্বহীনতা নয় বরং পুলিশ ও প্রশাসনের এই কর্মকাণ্ড ছাত্রদের মধ্যে সন্দেহের উদ্রেক করছে। তাই এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হওয়ার দরকার। এ সময় নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানান।

হাফিজুর রহমান গত ১৫ মে সন্ধ্যায় নিখোঁজ হন। এরপর গত রোববার রাতে ঢামেকের মর্গে তার মরদেহ শনাক্ত করা হয়। পুলিশের দাবি, ১৫ মে ঢাকা মেডিকেলের সামনে ডাব বিক্রেতার দা দিয়ে হাফিজুর নিজে নিজের গলায় চালিয়ে দেন। এতে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয় এবং সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।