ছুটিতে দেশে এসে আটকেপড়া সৌদি আরব প্রবাসী কর্মীদের সুখবর আসছে। দেশ থেকে সৌদি গিয়ে হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকার অর্ধেক খরচ বা জনপ্রতি ২৫ হাজার টাকা দেবে সরকার। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সচিব ড. আহমেদ মনিরুছ সালেহীন সমকালকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, কাজের জন্য সৌদি আরবে গমনেচ্ছু বাংলাদেশিদের সৌদি আরবের হোটেলে কোয়ারেন্টাইনের খরচে ভর্তুকি দেবে সরকার। এ বিষয়ে সরকার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

প্রবাসী কল্যাণ সচিব সমকালকে বলেছেন, নতুন কর্মীরা এ ভর্তুকি পাবেন না। শুধু যেসব কর্মী দেশে এসে আটকা পড়েছেন, তারা এ সুবিধা পাবেন। প্রথম পর্যায়ে সৌদি প্রবাসীরা এ সুযোগ পাবেন। ইতোমধ্যে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এ বিষয়ে কাজ শুরু করেছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, বিশেষ বিবেচনায় সৌদি গমনেচ্ছুদের ২০ বছর বয়স থেকে টিকা দেওয়ার বিষয়টিও বিবেচনা করছে সরকার। দুই ডোজ টিকা নেওয়া থাকলে সৌদি আরবে হোটেলের পরিবর্তে বাসায় কোয়ারেন্টিনের সুযোগ রয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, সৌদি আরবে যারা যাচ্ছে তাদের বাধ্যতামূলক হোটেলে কোয়ারেন্টিন থাকতে হচ্ছে। যারা সৌদি ফিরছেন, তাদের বেশিরভাগেরই হোটেলের খরচ বহনের সামর্থ্য নেই। কাজের জন্য সৌদি গমনেচ্ছুদের কোয়ারেন্টিনের জন্য হোটেলে থাকার খরচ সরকারিভাবে বহনের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, বিমান সংস্থার মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে কাজের জন্য যাওয়া নাগরিকদের তালিকা তৈরি করে সৌদিতে বাংলাদেশ মিশনকে দেওয়া হবে। বাংলাদেশ মিশন তাদের হোটেল খরচে ভর্তুকি দেওয়ার ব্যবস্থা করবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও জানান, জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা এক ডোজ নিলেই হয়। এ জন্য একটি প্রস্তাব আছে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা সংগ্রহ করে সৌদি গমনেচ্ছুদের দেওয়া যায় কিনা। খুব শিগগিরই একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে এ বিষয়টি আলোচিত হবে। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, আগামী রোববার এ সংক্রান্ত বৈঠক হবে।

করোনা টিকার দুই ডোজ নেওয়া না থাকলে সৌদিতে গিয়ে সাতদিন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকার কঠোর নিয়ম করেছে। সৌদি সরকারের নিয়মানুযায়ী, যাত্রীরা কোয়ারেন্টাইনে কোন হোটেলে তা নিশ্চিত করবে এয়ারলাইনস। বুকিং দিতে হবে এয়ারলাইনসের মাধ্যমে। অন্যথায় সৌদিতে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

ঢাকা থেকে রিয়াদের যাত্রীদের ৬৫ হাজার ৬০০ টাকা এবং জেদ্দা ও দাম্মামের যাত্রীদের ৫৪ হাজার ৫০০ টাকা দিতে হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন বাবদ। এ টাকার পুরোটাই যাচ্ছে কর্মীর পকেট থেকে। বিমান টিকিটের অতিরিক্ত দাম, করোনা পরীক্ষাসহ অন্যান্য খরচ মিলিয়ে লাখখানেক টাকা বাড়তি খরচের বোঝা চেপেছে করোনাকালে আয় কমে যাওয়া কর্মীদের ওপর। হোটেল বুকিং ও টিকিটের জন্য হাজারো কর্মী রোজ অপেক্ষার প্রহর গুনছেন এয়ারলাইনসগুলোর কার্যালয়ের সামনে।

আলাপকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে বহু লোক ভারত থেকে এসেছেন। তাদের মধ্যে মাত্র ১৩ জনের শরীরে ভারতীয় ধরন পাওয়া গেছে। ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়েছেন একজন। তবে সেটা ব্ল্যাক ফাঙ্গাস কিনা, তাও শতভাগ নিশ্চিন্ত হওয়া যায়নি। অথচ বাংলাদেশে ভারতীয় ধরন এবং ব্ল্যাক ফাঙ্গাস নিয়ে প্রচারণা হচ্ছে বেশি। এটা দুঃখজনক। এ ধরনের প্রচারণার কারণেই সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইংল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, বাহরাইনসহ কয়েকটি দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে।