আসন্ন বাজেটে যুবদের উন্নয়নে অর্থ বরাদ্দ বাড়ানোসহ উদ্যোক্তাদের সহজ শর্তে ঋণ দেওয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। শনিবার একশনএইড বাংলাদেশ ও ধ্রুবতারা ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ও আয়োজনে প্রাক বাজেট ভার্চুয়াল সংলাপে এ দাবি করা হয়।

আলোচকরা বলনে, দুর্নীতি রোধ না হলে কোন খাতেই কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন হবে না। ভার্চুয়াল সংলাপে রাষ্ট্রের নীতি-নির্ধারক, অর্থনীতিবিদরা আলোচনায় অংশ নিয়ে বলনে, যুবদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ, বেকার ভাতা দেওয়া ও উদ্যোক্তাদের সহজে ঋণ দিয়ে ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসা গড়ে তোলার সুযোগ করে দিতে হবে। পরিবেশ ও জলবায়ু খাতে বাজেট বৃদ্ধি ও টেকসই উন্নয়ন এবং ইন্টারনেটের দাম কমানো ও সেবার মান বৃদ্ধি করার দাবি করে যুব প্রতিনিধিরা। এছাড়াও আলোচকরা কৃষি খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি ও পণ্যের ন্যায্য মূল্য প্রদান, শিক্ষা খাতে বরাদ্দ বাড়ানো, সবার জন্য খাদ্য নিশ্চিতে খাদ্য অধিকার আইন প্রণয়ন ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য বিশেষ বরাদ্দ এবং যুব ব্যাংক প্রতিষ্ঠা উপর জোড় দেন তারা।

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের পরিচালক আজহারুল ইসলাম খান বলেন, যুবদের উন্নয়নে জাতীয় যুব কাউন্সিল গঠন করতে হবে। তাহলে কর্মসংস্থানের পাশাপাশি তাদের ভবিষ্যতও তৈরি হবে। যুবদের উন্নয়নে দেশের সুশীল সমাজের অগ্রনী ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ বলে মত দেন অনেকে। ভার্চুয়াল সংলাপে সঞ্চালক হিসেবে ছিলেন ধ্রুবতারা ইয়্যুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অমিয় প্রাপণ চক্রবর্তী।

বিশেষ এই আলোচনা সভায় অংশ নেন নীতিনির্ধারক  ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ যুব সদস্যরা। এই আলোচনায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক ও এসএম শাহজাদা, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সায়েদা রুবিনা আক্তার, সাবেক সচিব ও বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান হেদায়াতুল্লাহ আল মামুন, সাবেক বিসিসিআই সভাপতি ও বর্তমান চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ এর চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহীম, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের-বাপা এর যুগ্ম সচিব ইকবাল হাবীব, একশনএইড বাংলাদেশ এর ম্যানেজার নাজমুল আহসান, আবরার হোসেইন সায়েম- পরিচালক সায়েম গ্রুপ, অধ্যাপক এমএম আকাশ, তানভীর হাসান সৌরভ- সিইও সোসিয়ান লিমিটেড, শুক্লা সারয়ার সিরাত- মহাসচিব গুলশান সোসাইটি, অধ্যাপক কাজী মারুফুল ইসলাম, আক্তার উদ্দিন- প্রধান ইউএনভি বাংলাদেশ, অধ্যাপক শাহ্‌ আজম, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ধ্রুবতারা ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনসহ আরও অনেকে।