পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের খুবই ভালো সম্পর্ক। ভালো সম্পর্কের কারণে আমাদের পানি চুক্তি হয়েছে, বর্ডার বাউন্ডারি হয়েছে, সামুদ্রিক পানি চুক্তি হয়েছে। অনেক কিছু হয়েছে, আরও হবে। সমস্যা থাকবেই প্রতিবেশীর সঙ্গে, কিন্তু এগুলো পজিটিভলি দেখা উচিত।

শুক্রবার রাতে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) অর্থনীতি বিভাগের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত ‘কেমন বাজেট চাই’ শীর্ষক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। আলোচনা সভার সার্বিক সহযোগিতায় ছিল শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব।

অন্যদিকে চীনের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, চীন আমাদের ডেভেলপমেন্ট পার্টনার হিসেবে বিভিল্প প্রজেক্টে সাহায্য করে। আবার কোনো কোনো প্রজেক্টে ঠিকাদার হিসেবে কাজ করছে। অনেকের ধারণা, পদ্মা সেতু চীন করে দিচ্ছে। এটা ভুল। আমরা আমাদের টাকায় করছি। তারা আমাদের ঠিকাদার, আমরা তাদের নিয়োগ করেছি।

আলোচনা সভায় শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, বাজেটের সঙ্গে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে, যেন এই বাজেটে জনগণের চাহিদার প্রতিফলন হয়।

ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন সাবেক এনবিআর চেয়ারম্যান ও সিনিয়র সচিব বর্তমানে জার্মানিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ও সিনিয়র সচিব ড. শামসুল আলম, পরিসংখ্যান বিভাগের উপসচিব ও বিবিএসের প্রকল্প পরিচালক মো. দিলদার হোসেন, নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. গৌর গোবিন্দ গোস্বামী, কানাডা ফেডারেল গভর্নমেন্টের অর্থনীতিবিদ ড. আহমেদ নাসিম সাঈদী, শাবির অর্থনীতি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কাশমীর রেজা, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক মুনতাহা রাকিব, সুইডেনের লিংকোপিং ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক ড. গাজী সালাহউদ্দীন প্রমুখ। সভার সঞ্চালনা করেন অর্থনীতি বিভাগের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য ও সিনিয়র সাংবাদিক ফারুক মেহেদী।