টিকটক ও লাইকির জন্য অশালীন মিউজিক ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে রাজশাহীতে দুই তরুণীসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে।

তারা হলো- টিকটক-লাইকি তারকা হিসেবে পরিচিত তানিশা ও পায়েল। আর তাদের সহযোগী হলো- মেহেদী হাসান ও রাব্বি। তাদের মধ্যে তানিশার বাড়ি নগরের মতিহার থানার খোঁজাপুরে, পায়েলের বাড়ি নওগাঁর মান্দা উপজেলার নারায়ণপুরে এবং মেহেদীর বাড়ি পবার কানপাড়ায় ও রাব্বির বাড়ি নগরের চন্দ্রিমা থানার মুশরাইলে।

নগরের পদ্মা গার্ড, জিয়া পার্ক, বিমান চত্বর, টি-বাঁধ ও আই বাঁধ এলাকায় তারা টিকটক-লাইকি মিউজিক ভিডিও তৈরি করে থাকে। সোমবার দুপুরে মহানগর পুলিশের সদর দপ্তরে সাংবাদিকদের সামনে তাদের হাজির করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিকী জানান, টিকটক-লাইকি গ্রুপের হয়ে পায়েল ও তানিশা বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে মিউজিক ভিডিও করার জন্য তরুণ-তরুণীদের আকৃষ্ট করে। তাদের ফাঁদে পড়া একজন ভিকটিমকেও উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার পায়েল ও তানিশার কাছ থেকে টিকটক-লাইকি গ্রুপের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছে পুলিশ। এ গ্রুপে জড়িত অনেকের নামও পাওয়া গেছে। তাদেরও গ্রেপ্তার করা হবে।

পুলিশ কমিশনার আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে লাইকি গ্রুপের ভিডিও তৈরির হোতা গ্রেপ্তার মেহেদী হাসান পুলিশকে জানিয়েছে, লাইকি ভিডিও তৈরি করে প্রতি মাসে সে আট হাজার থেকে দশ হাজার টাকা আয় করে। মেহেদী অভাবী কিশোর-কিশোরীকে দিয়ে অশ্নীল ও আপত্তিকর ভিডিও তৈরি করত।

বিষয় : টিকটক লাইকি অশালীন ভিডিও রাজশাহী গ্রেপ্তার

মন্তব্য করুন