গভীর রাতে ক্লাস নিয়েছেন রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) উপাচার্য অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ। বুধবার রাত ৩টা ২০ মিনিটে তিনি জেন্টার অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় সেমিস্টারের 'পলিটিক্যাল থট' কোর্সের ক্লাস শুরু করেন। প্রায় ৩৫ মিনিট চলা এ ক্লাসে বিভাগের ২৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। 

গভীর রাতে উপাচার্যের ক্লাস নেওয়া নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে-বাইরে চলছে সমালোচনার ঝড়।

শিক্ষার্থীরা জানান, বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় 'পলিটিক্যাল থট' কোর্সের এ ক্লাস অনলাইনে রাত ৩টায় নেবেন বলে জানান উপাচার্য নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ। শিক্ষার্থীদের ক্লাসে থাকতে বিভাগ থেকে বলা হয়। এরপর অনলাইন প্ল্যাটফর্ম গুগল মিটে রাত ৩টা ২০ মিনিটে ক্লাস শুরু হয়। ক্লাসের শুরুতে ২৮ শিক্ষার্থী যুক্ত হন। অবশ্য শেষ পর্যন্ত ১২ জন যুক্ত ছিলেন। রাত ৩টা ৫৫ মিনিটে ক্লাস শেষ করেন উপাচার্য।

অভিযোগ রয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের অর্ধশতাধিক কোর্সের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি। এসব কোর্সের সর্বোচ্চ এক থেকে দুটি নামমাত্র ক্লাস নিয়েছেন। পরীক্ষার খাতা কর্মচারী দিয়ে মূল্যায়ন ও পরীক্ষায় অনুপস্থিত থাকা শিক্ষার্থীদের পাস করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একাংশের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক মতিউর রহমান বলেন, মধ্যরাতে ক্লাস নেওয়া কোনো সুস্থ শিক্ষকের কাজ হতে পারে না।

এ বিষয়ে জানতে উপাচার্য অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি ধরেননি।

আগামী রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ে নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর শেষ কর্মদিবস।