এমবিবিএসে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের উপজাতি কোটায় ভর্তি কার্যক্রম তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে প্রতি বছর কেন উপজাতি কোটায় ভর্তিতে অনিয়ম হয়, তা জানতে চেয়ে সংশ্নিষ্টদের প্রতি রুল জারি করেন আদালত। এক সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি মুজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল ইসলাম মোল্লার ভার্চুয়াল বেঞ্চ সোমবার এই আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জ্যেতির্ময় বড়ুয়া। তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী শ্যাম সুন্দর সিংহ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী।

শ্যাম সুন্দর জানান, নিয়ম অনুযায়ী সরকারি মেডিকেল কলেজে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের জন্য মোট আসনের ২ শতাংশ সংরক্ষিত থাকে। আর তিনটি পার্বত্য জেলার জন্য ১২টি এবং পার্বত্য জেলা ছাড়া দেশের অন্যান্য জেলার জনগোষ্ঠীর (উপজাতি) জন্য আটটি আসন সংরক্ষিত থাকে। কিন্তু রিটকারী আইনজীবী দাবি করেন, ওই আটটি আসনে উপজাতির বদলে প্রতি বছর দেশের বিভিন্ন এলাকার সমতলের শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হয়েছে। এমনকি চলতি বছরও এরকম চারজনকে ভর্তি করা হয়। তাই বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হয়। রিটে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ তিনজনকে বিবাদী করা হয়।

বিষয় : এমবিবিএস উপজাতি কোটা হাইকোর্ট

মন্তব্য করুন