প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারকে অনেক ঘাত-প্রতিঘাত এমনকি মনুষ্য সৃষ্ট দুর্যোগ মোকাবিলা করেই আজকের অবস্থানে আসতে হয়েছে। এগুলো মোকাবিলা করেই বাংলাদেশ কিন্তু এগিয়ে যাচ্ছে এবং এগিয়ে যাবে।

মঙ্গলবার সকালে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকের পূর্বে মুজিববর্ষ উপলক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় কতৃর্ক প্রকাশিত স্মারকগ্রন্থ ‘দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসে বঙ্গবন্ধু’-এর মোড়ক উন্মোচনকালে দেওয়া ভাষণে একথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে এবং পরিকল্পনা মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টরা শেরে বাংলা নগর পরিকল্পনা কমিশনের এনইসি সম্মেলন কেন্দ্র থেকে ভিডিও কনফারেন্সে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন। খবর বাসসের।

সরকার প্রধান বলেন, ‘জাতির পিতার পদাংক অনুসরণ করেই নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগে আমরা এদেশের মানুষকে বাঁচাতে সক্ষম হয়েছি। ঘুর্ণিঝড়, জলোচ্ছাস মোকাবিলা করবার মত আত্মবিশ্বাস আমরা পেয়েছি এবং এটি মোকাবিলার পরিকল্পনা এবং পদক্ষেপ আমরা গ্রহণ করতে পেরেছি।’

‘ঝড়-ঝাপটা, জলোচ্ছ্বাস, ঘুর্ণিঝড়সহ যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ যতই আসুক না কেন বাংলাদেশের জনগণ তা মোকাবেলা করতে পারে,’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কেননা আমাদের মহান নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এটা আমাদের শিখিয়ে দিয়ে গেছেন।’

সরকারের যথাযথ পরিকল্পনা গ্রহণ এবং বাস্তবায়নের উদ্যোগের ফলেই বাংলাদেশ আজ এসডিজি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বিশ্বের শীর্ষ তিনটি দেশের একটিতে পরিণত হতে পেরেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সরকার গঠন করার পর থেকে আমরা নানা কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছি। যার ফলাফল আজকে আমরা এসডিজি বাস্তবায়নে বিশে^র তিনটি দেশের মধ্যে অন্যতম অবস্থানে রয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আমরা যে সুপরিকল্পিত পদক্ষেপ নিয়েছি এবং আমাদের পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় এগুলো আমরা গ্রহণ করেছি। আবার আমাদের বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যে ঘোষণাপত্র, গঠনতন্ত্র, নির্বাচনী ইশতেহার-সেখানেও কিন্তু দেশের উন্নয়নের কথা চিন্তা করেই বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা আমরা ঘোষণা করেছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশেষ করে এই করোনাভাইরাসের কারণে যখন সমগ্র বিশ্বের অর্থনীতি স্থবির সেই সময় বাংলাদেশ একদিকে করোনাভাইরাস মোকাবেলা ও মানুষকে সুরক্ষিত করা-অপরদিকে অর্থনৈতিক উন্নয়নকে গতিশীল রাখতে পেরেছে।

শেখ হাসিনা এসময় জাতির পিতার ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের সেই অমোঘ মন্ত্র ‘কেউ আমাদের দাবায়ে রাখতে পারবে না’ পুন:উচ্চারণ করেন।