মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় লঘুচাপের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি ঝরছে। আরও দুই-একদিন বৃষ্টির এই ধারা চলার পর শুক্রবার থেকে কমতে পারে, বলছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে টেকনাফে ৩২৮ মিলিমিটার। এ সময় কক্সবাজারে ১১৫, কুতুবদিয়ায় ১২৫, পটুয়াখালীতে ২৫২, খেপুপাড়ায় ২৬২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ শাহনাজ সুলতানা বলেন, বর্ষার মাঝ সময়ে এমন ভারি বর্ষণ হয়। লঘুচাপটি এখন সুস্পষ্ট লঘুচাপে রূপ নিয়েছে। তবে নিম্নচাপে রূপ নেওয়ার শঙ্কা নেই। মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় আরও দু’দিন ভারি বর্ষণ হবে বিভিন্ন অঞ্চলে। শুক্রবার থেকে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা তুলনামূলক কমতে পারে।

এ আবহাওয়াবিদ জানান, লঘুচাপের প্রভাবে দেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও সমুদ্রবন্দরে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যতে বলা হয়েছে।

সেই সঙ্গে সাগরে থাকা সব নৌযানকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।