ঝালকাঠি সদর থানায় করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুল ইসলামকে জামিন দেননি হাইকোর্ট। এক আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি জে বি এম হাসানের একক ভার্চুয়াল বেঞ্চ বুধবার উভয়পক্ষের শুনানি শেষে জামিন আবেদন নাকচ করেন।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র সাবেক মন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও তার মেয়ে সুমাইয়া হোসেনকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় ২০২০ সালের ৬ ডিসেম্বর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়।

ঝালকাঠি জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আ স ম মোস্তাফিজুর রহমান মনু ঝালকাঠি সদর থানায় রাব্বিসহ অজ্ঞাত চার থেকে পাঁচজনকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ওই মামলা করেন। এ মামলায় ঝালকাঠি জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক শেখ মো. রাব্বীকে গ্রেফতার করা হয়। একই মামলায় সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে তরিকুল ইসলামকে গত ৯ এপ্রিল গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর তিনি জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন।

আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এসকে ইউসুফুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।