আদমদীঘির সান্তাহারে ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে সুলতান মোল্লা নামের একজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে। সুলতান উপজেলার ছোট মালশন গ্রামের বাসিন্দা।

শনিবার সকালে ছাত্রীর মা বাদী হয়ে আদমদীঘি থানায় এ মামলা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, স্কুলছাত্রী বাবা ও মায়ের সঙ্গে নারায়ণগঞ্জে থাকে। ঈদুল আজহার ছুটিতে তারা সপরিবারে ছোট মালশন গ্রামে বাড়িতে আসে। বাড়িতে আসার পর থেকে একই গ্রামের সুলতান মোল্লা ছাত্রীকে বিয়ের কথা বলে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। গত বৃহস্পতিবার ছাত্রী বাড়ি থেকে সান্তাহার উপহার টাওয়ার মার্কেটে যায়। এ সময় সুলতান মোল্লা তাকে মোবাইল থেকে ফোন করে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার নাম করে খালার বাসা আরজি নওগাঁ নিয়ে যায়। সেখানে রাতে একটি ঘরে আটকে রেখে তাকে ধর্ষণ করে। ছাত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে ফোনে বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানানো হলে তারা ঘটনাস্থল থেকে মেয়েটিকে নিয়ে যান।

আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীন মামলা দায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আসামিকে গ্রেপ্তারের তৎপরতা চলছে।