ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২১৮ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে ২০৮ জনই রাজধানীর ৪১টি হাসপাতালে। অন্য দশজন ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ নিয়ে চলতি বছরে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে তিন হাজার ৯০১ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হলেন। 

বৃহস্পতিবার সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) এ তথ্য জানিয়েছে।

আইইডিসিআর জানায়, চলতি বছর ভর্তি হওয়া মোট রোগীর মধ্যে দুই হাজার ৮৩৬ জন হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট এক হাজার ৫৫ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকার ৪১টি হাসপাতালে ভর্তি আছেন এক হাজার ১২ জন। এ পর্যন্ত ডেঙ্গু সন্দেহে দশজনের মৃত্যুর খবর আইইডিসিআরে জমা পড়েছে।

এদিকে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন চিরুনি অভিযানসহ ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। যেসব ভবন ও স্থাপনায় এডিস মশার লার্ভা ও মশার বংশবিস্তার উপযোগী পরিবেশ পাওয়া যাচ্ছে, সেসব ভবন মালিককে বিভিন্ন অঙ্কের অর্থ জরিমানা করছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বৃহস্পতিবার দুই সিটি করপোরেশন অভিযান চালিয়ে ৪৪ ভবন মালিককে ১১ লাখ ৪৮ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) জানায়, বৃহস্পতিবার ১০টি ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা ১০ ভবন মালিককে ছয় লাখ ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। 

অভিযানকালে মাইকিং করে জনসচেতনতামূলক বার্তা প্রচার করা হয় এবং সবাইকে এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে 'তিন দিনে এক দিন, জমা পানি ফেলে দিন' স্লোগান মেনে চলার পাশাপাশি করোনা রোধে সরকারি নির্দেশনা মানার পরামর্শ দেওয়া হয়।

এদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনও (ডিএসসিসি) ১২টি ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালায়। এ সময় এডিস মশার লার্ভা ও বংশবিস্তার উপযোগী পরিবেশ পাওয়ায় ৩৪টি নির্মাণাধীন ভবন ও বাড়িকে চার লাখ ৯৩ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়।