বরিশাল বিভাগের ছয় জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ও করোনা উপসর্গে মোট ২৮ জন মারা গেছেন। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬২৪ জন। বিভাগে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে করোনা শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ৩৭ শতাংশ। 

শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে আগের ২৪ ঘণ্টার হিসাবে বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।  

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন- বরিশালে ৫ জন, পটুয়াখালী ও ভোলায় ৪ জন করে এবং ঝালকাঠীতে একজন। বিভাগের ছয় জেলায় মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে এক হাজার ৯২৮ জনের। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন ৬২৪ জন। 

বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালের তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা জাকারিয়া খান স্বপন জানান, হাসপাতালের করোনা ইউনিটে উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন ১৪ জন মারা গেছেন। এছাড়া হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে ১৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮২ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৪২ শতাংশ। 

গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে শনাক্তের হারে শীর্ষে ভোলা জেলা। জেলায় শনাক্তের হার ৩৭ দশমিক ৬৮ শতাংশ। ভোলায় ৪১৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৫৬ জন পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত সংখ্যার শীর্ষে বরিশাল জেলা। এখানে ২০৩ জন পজিটিভ শনাক্ত হন। জেলায় নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৬১৭ জনের। শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ৯০ শতাংশ।

পিরোজপুর জেলায় শনাক্তের হার ৩৪ দশমিক ৩৮ শতাংশ। এ জেলায় ১২৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪৪ জন পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। পটুয়াখালীতে ২৪ ঘণ্টায় ১২৭ জন পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৪২১ জনের। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৩০ দশমিক ১৭ শতাংশ।

ঝালকাঠী ও বরগুনায় শনাক্তের হার যথাক্রমে ২৯ দশমিক ৬১ এবং ২৫ শতাংশ। ঝালকাঠীতে  ১৫২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪৫ জন এবং বরগুনায় ১৯৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪৯ জন পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন।  

শেবাচিম হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, এ হাসপাতালের ৩০০ শয্যার করোনা ইউনিটে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৮০ জন চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের মধ্যে পজিটিভ শনাক্ত রোগী ৯৬ জন।