চিত্রনায়িকা পরীমণি, প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ, দুই মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌ এবং আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী হেলেনা জাহাঙ্গীরকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

এ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, বন্য প্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা পৃথক সাতটি মামলা শুক্রবার রাতে সিআইডিকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়। এরপর সিআইডিতে তাদেরও হস্তান্তর করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা (ডিবি) শাখা।

সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিআইডির গণমাধ্যম শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আজাদ রহমান। তিনি বলেন, আসামি ও মামলার নথিপত্র সিআইডি বুঝে পেয়েছে। রিমান্ডে থাকা আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

৪ আগস্ট পরীমণির বনানীর বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। এসময় তার বাসা থেকে মাদক উদ্ধারের কথা জানায় র্যা পিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র্যা ব)। একইদিন রাতে প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজকেও আটক করা হয়। পরে বনানী থানায় পরীমণি ও রাজের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক মামলা করা হয়। এবার তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

প্রায় একই রকম অভিযোগসহ ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ও ব্যক্তিদের সম্মানহানি করার অভিযোগে গত ২৯ জুলাই হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করা হয়। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, বিশেষ ক্ষমতা আইন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ও বন্য প্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনে হেলেনার বিরুদ্ধে পৃথক মামলা হয়।

এরপর রাজধানীর বারিধারা এলাকা থেকে মাদকদ্রব্যসহ ফারিয়া মাহাবুব পিয়াসা এবং মোহাম্মদপুর থেকে ইয়াবাসহ মরিয়ম আক্তার মৌকে গত রোববার মধ্যরাতে আটক করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।