টানা ২১ দিনের লকডাউন বুধবার সারাদেশে দোকানপাট খুলছে। বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসায়ীদের দোকান পরিচালনার পরামর্শ দিয়েছে। 

দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলালউদ্দিন সমকালকে বলেন, দীর্ঘ বিরতির পর দোকান খোলা হচ্ছে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান চালানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ব্যবসায়ীদের। কেউ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। 

তিনি বলেন, বড় মার্কেট, বিপণিবিতান, শপিংমলের দোকান টানা বন্ধ ছিল। এসব জায়গার দোকানসহ অন্যান্য দোকানে মালামাল নষ্ট হয়ে থাকতে পারে। আমরা সরকারকে অনুরোধ করছি যেসব দোকান মালিকের পুঁজি ও পণ্য নষ্ট হয়েছে, তাদের যাতে বিনা শর্তে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়। সমিতির পক্ষ থেকে ক্ষতির হিসাব করে সরকারকে জানানো হবে। 

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে গত ৫ এপ্রিল থেকে চলাচলসহ সব ধরনের কর্মকাণ্ডে বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। কোরবানির ঈদের আগে এক সপ্তাহ বাদে বলা যায় এ সময়ে টানা লকডাউন ছিল। এ সময় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ছাড়া অন্যান্য পণ্যের দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয় সরকার।  

যদিও দোকান মালিক সমিতি স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খোলার দাবি জানিয়েছিল। কিন্তু সরকার সে দাবি রাখেনি। সরকারের সর্বশেষ প্রজ্ঞাপনে অন্যান্য খাতের সঙ্গে দোকানপাট খোলা রাখার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।