প্রশাসনে ৯২ জন যুগ্ম সচিবকে অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতি দিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার ৮৯ জনের পদোন্নতির প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। লিয়েন ও শিক্ষা ছুটিতে থাকা বাকি তিনজন দেশে ফিরে চাকরিতে যোগদান করলে তাদের পদোন্নতির প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতি দিয়ে ৮৭ কর্মকর্তাকে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়েছে। তবে তাদের পদায়ন করা হয়নি। বাকি দু'জন বিদেশে মিশনে কর্মরত আছেন।

জানা যায়, এবার পদোন্নতিযোগ্য কর্মকর্তা ছিলেন ৩৭২ জন। এর মধ্যে মাত্র ৯২ জনকে পদোন্নতি দেওয়ায় আড়াই শতাধিক কর্মকর্তা বঞ্চিত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ৮৫ ও ৮৬ ব্যাচের কেউ পদোন্নতি পাননি। নবম ব্যাচে পদোন্নতি পেয়েছেন মাত্র দু'জন, দশমে তিনজন, ১১তম ব্যাচের ১০ জন কর্মকর্তা। অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতি দিতে ১৩তম ব্যাচকে মূল ব্যাচ হিসেবে বিবেচনায় নেওয়া হয়। এ ব্যাচে পদোন্নতি পেয়েছেন ৪৫ জন, ইকোনমিক ক্যাডার থেকে প্রশাসনে আসাসহ অন্যান্য ক্যাডারের ২৯ জন কর্মকর্তা পদোন্নতি পেয়েছেন।

নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে পদোন্নতিবঞ্চিত কয়েকজন কর্মকর্তা বলেন, পদ শূন্য না থাকলে কেউ পদোন্নতি পাবেন না। কিন্তু পদ না থাকার পরও কেউ পদোন্নতি পেলেন, আর কেউ পেলেন না- এটি অন্যায্য। এতে প্রশাসনে বঞ্চিতদের সংখ্যা বাড়ল। তারা এসএসবির (সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ড) কাছে তাদের বক্তব্য তুলে ধরবেন।

পদোন্নতি পাওয়া কর্মকর্তাদের নিয়ে প্রশাসনে অতিরিক্ত সচিবের সংখ্যা হলো ৫০৮ জন। যদিও অতিরিক্ত সচিবের স্থায়ী পদের সংখ্যা ২১২টি। অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের যোগদানপত্র ই-মেইলে (sa1@mopa.gov.bd) পাঠাতে হবে বলে আদেশে উল্লেখ করা হয়। নিয়মিত পদ না থাকায় পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিবদের বেশিরভাগকেই পদোন্নতির আগে যেখানে ছিলেন, সেই কর্মস্থলেই থাকবেন অর্থাৎ ইনসিটু রাখা হবে।

সর্বশেষ গত বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর ৯৮ জন যুগ্ম সচিবকে অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতি দিয়েছিল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।