শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার ঘোনাপাড়া নয়াবাজার এলাকা থেকে মাধ্যমিকের ১৭ বস্তা পাঠ্যবই জব্দ করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে এসব বই ইজিবাইকে করে নিয়ে যাওয়ার সময় জব্দ করা হয়। এ সময় আটক করা হয় ইজিবাইকের চালক রুবেল মিয়াকে। তিনি ঝিনাইগাতী উপজেলার লয়খা গ্রামের মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। বৃহস্পতিবার পাঠ্যবই বিক্রির অভিযোগে ঘোনাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কোহিনুর ফারজানাসহ (ভারপ্রাপ্ত) পাঁচজনের বিরুদ্ধে শ্রীবরদী থানায় মামলা হয়েছে।

বুধবার রাতে পুলিশ উপজেলার নয়াবাজার এলাকায় বিক্রির জন্য ১৭ বস্তা পাঠ্যবই নিয়ে যাওয়ার সময় সেগুলো জব্দ করে। এ সময় ইজিবাইক চালাক রুবেল মিয়াকে আটক করে পুলিশ।

ঘোনাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কোহিনুর ফারজানার দাবি, স্কুলের দপ্তরি আব্দুর রউফকে স্কুল পরিচ্ছন্নতার দায়িত্ব দিয়ে বলা হয়, পুরোনো খাতা বিক্রি করে দিতে। কিন্তু খাতার পাশাপাশি তিনি কিছু বইও বিক্রি করে দেন। প্রধান শিক্ষক অভিযোগ করেন, স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে তাকে বিক্রির ঘটনায় ফাঁসানো হয়েছে।

শ্রীবরদী থানার ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, এ ঘটনায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় আরও দু'জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। একজনকে আটক করা হয়েছে।