ডুমুরিয়ার কৃষকরা কৃষিতে বিপ্লব ঘটিয়ে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করেছে। উপজেলার প্রতিটি বিলে মাছের ঘেরের পাশে অফসিজন তরমুজ ও সিমের আবাদ করা হচ্ছে। কৃষকরা একই জমিতে বছরে দুই থেকে তিনটি ফসল উৎপাদন করেছে। এখানে ধান, ভুট্রা, বার্লি, সূর্ষমুখী, শাকসবজিসহ অনেক ফসলের লবণক্ততাসহিষ্ণু জাত উদ্ভাবন হয়েছে। তাছাড়া ডুমুরিয়ার কৃষিপণ্য এখন বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে।

রোববার উপজেলার বরাতিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে কৃষি বিভাগ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আব্দুলল্গাহের সভপতিত্বে এবং উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. মোছাদ্দেক হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন সাবেক মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদা আক্তার, বিএডিসির চেয়ারম্যান ড. অমিতাভ সরকার, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় উপপরিচালক মো. হাফিজুর রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আ'লীগ নেতা প্রতাপ কুমার রায়, স্থানীয় কৃষক পংকজ কুমার মণ্ডল, আবু হানিফ মোড়ল প্রমুখ।