ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ধামাকা শপিং ডটকমে ৬৫০ জন বিক্রেতা বা মার্চেন্টের ২০০ কোটি টাকা আটকে রয়েছে। শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ধামাকা শপিং ডটকম সেলার অ্যাসোসিয়েশনের সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করা হয়েছে।

অ্যাসোসিয়েশনের সমন্বয়কারী জাহিদুল ইসলাম লিখিত বক্তব্যে জানান, ইনভ্যারিয়ান্ট টেলিকম বাংলাদেশ লিমিটেড পরিচালিত ধামাকা শপিং ডটকম আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে বিক্রেতাদের পাওনা প্রায় ২০০ কোটি টাকা পরিশোধ না করলে প্রতিষ্ঠানটির এমডি ও চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘ধামাকার প্রায় তিন লাখ গ্রাহক রয়েছেন। গ্রাহকদের এক লাখ পণ্য ডেলিভারি বাকি রয়েছে, যা টাকার অংকে ১০০ কোটি টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রায় ৬৫০ জন এসএমই উদ্যোক্তা ২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকে ধামাকা শপিং ডটকমের নির্দেশনা ও চুক্তি অনুযায়ী পণ্য সরবরাহ করে আসছে। পণ্য দিয়ে বিল দাখিল করার ১০ কার্যদিবসের মধ্যে পাওনা অর্থ পরিশোধের কথা বলে গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রায় ২০০ কোটি টাকার পণ্য নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু দুঃখজনকভাবে ১৬০ কার্যদিবস অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত অর্থ পরিশোধ করা হয়নি। 

এপ্রিল থেকে ধামাকার নির্দেশিত গ্রাহকের কাছে পণ্য সরবরাহ বাবদ বিক্রেতাদের পাওনা টাকা পরিশোধ করা হয়নি। সংবাদ সম্মেলনে সেলার ও তিন লাখ গ্রাহকের মানবিক দিক বিবেচনা করে ধামাকার ব্যাংক হিসাব খুলে দেওয়াসহ ধামাকা শপিং ডটকম সম্পর্কে যথাযথ সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিশেষ অনুরোধ করা হয়।