ডিজিটাল জালিয়াতি ও অবৈধ পন্থায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ভর্তি হওয়ার অভিযোগে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল দুই শিক্ষার্থীকে। সেই দুইজনকে অবশেষে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। একইসঙ্গে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়টির আরেক শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি একজন ছাত্রলীগ নেতা।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে শৃঙ্খলা পরিষদের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

স্থায়ীভাবে বহিষ্কৃতরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী মো. রাকিব হাসান এবং একই সেশনের ভূতত্ত্ব বিভাগের ইশরাক হোসেন রাফি। এছাড়া শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে সাময়িক বহিষ্কার হন বাংলা বিভাগের ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষের মো. আকতারুল করিম রুবেল।

সভায় রুবেলকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিয়ে ‘কেন তাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না’- এ মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক বলে জানা গেছে।

এছাড়া সভায় পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়টির ৭২ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।