গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার কাঁচারস গ্রামে মাকে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগে ছেলে শাহজাহান খান ওরফে সাজুকে (৪৬) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত। 

একই সঙ্গে আসামিকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও তিন মাসের সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে।

গাজীপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মমতাজ বেগম বৃহস্পতিবার সকালে এ দণ্ডাদেশ দেন।

শাহজাহান খান ওরফে সাজু গাজীপুরের কালিয়াকৈর থানার কাঁচারস এলাকার মো. আমছের আলী খানের ছেলে। 

আদালত ও মামলার এজাহারে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৯ মার্চ বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বাড়ির পাশে বাঁশ ঝাড় থেকে বাঁশ কাটার সময় শাহজাহানকে বাধা দেন তার বাবা আমছের আলী। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শাহজাহান তার হাতে থাকা দা দিয়ে তার মা আনোয়ারা বেগমের গলার বাম পাশে কোপ দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন আনোয়ারা বেগম। 

ওই ঘটনায় নিহতের ভাই মো. হাশেম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। 

পরবর্তীতে শাহজাহান একই বছরের ২মে আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠান।পরে গ্রেপ্তারকৃত শাহজাহান আদালতে ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। 

পুলিশ তদন্ত ও স্বাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে ৩০২ ধারায় অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট শাহজাহানের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ওই বছরের ১ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। মোট ১৩ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আসামি মো. শাহজাহান খান ওরফে সাজুকে দোষী সাব্যস্ত করে বৃহস্পতিবার

মামলার রায় প্রদান করেন জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মমতাজ বেগম। 

রায় ঘোষণার সময় আসামি শাহজাহান আদালতে উপস্থিত ছিলেন। প্রসিকিউশনের পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভোকেট মো. হারিছ উদ্দিন আহম্মদ ও আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট মো. ইসমাইল হোসেন খান।