শ্লীলতাহানির মামলায় সবুজবাগ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম ইয়াসমিন আরা তার জামিন আবেদন বাতিল করে এ আদেশ দেন।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর চিত্তরঞ্জন দাস আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত ধার্য তারিখ পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করেন।

চিত্তরঞ্জন দাস আদালতে হাজির হয়ে আইনজীবী কাজী নজিব উল্লাহ হিরুর মাধ্যমে স্থায়ী জামিন আবেদন করেন। বাদীপক্ষের অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান ও নিয়াজ মোর্শেদ নোমান জামিন বাতিলের আবেদন করেন। তারা বলেন, আসামি জামিন পাওয়ার পর মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি দিচ্ছেন। সে বিষয়ে থানায় জিডিও হয়েছে। শুনানি শেষে আদালত জামিন বাতিল করে চিত্তরঞ্জনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ১১ সেপ্টেম্বর শ্লীলতাহানির অভিযোগে এক ভুক্তভোগী নারী সবুজবাগ থানায় চিত্তরঞ্জন দাসের বিরুদ্ধে মামলা করেন। তিনি নিজেকে একজন গণমাধ্যমকর্মী বলে দাবি করেন।