বাংলাদেশ একাদশ থেকে বাদ পড়েছেন আগের ম্যাচে ওপেনিংয়ে নামা সৌম্য সরকার। দলে ফিরেছেন বাঁহাতি ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম। বাংলাদেশ দলে পরিবর্তন একটিই।

বোলিং বিবেচনায় সৌম্যকে স্কটল্যান্ডের বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু বোলিংয়ে অন্যরা ভালো করায় তাকে বল করানোর প্রয়োজন হয়নি। টপ অর্ডারে ব্যাটিং করলেও ৫ রানে শেষ তার ইনিংস।

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের ১৬টি টি-টোয়েন্টিতে নেমেছেন নাঈম। প্রথম ম্যাচে তার না থাকায় সমালোচনার ঝড় হয়েছে। তাই দ্বিতীয় ম্যাচেই টাইগার একাদশে ঠাই হলো তার। এ বছর টি-টোয়েন্টিতে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ রান নাঈমের। ১৬ ম্যাচে ২৩.৪০ গড়ে তার রান ৩৫১।

স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে চাপে আছে বাংলাদেশ। সুপার টুয়েলভে যেতে হলে মাহমুদউল্লাহ-সাকিবদের এখন কেবল পরবর্তী দুই ম্যাচ শুধু জিতলেই হবে না, রান রেটটাও মোটাতাজা রাখতে হবে। কারণ 'বি' গ্রুপ থেকে তিন দলের পয়েন্ট সমান হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

তখন রান রেটে গ্রুপের শীর্ষ দুই দল নির্ধারিত হবে। স্কটল্যান্ড ও ওমান তাদের প্রথম ম্যাচ জিতেছে। উভয় দলেরই আরও একটি করে ম্যাচ জেতার সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশও যদি পরের দুটি ম্যাচ জেতে তাহলে তিন দলের সমান ৪ পয়েন্ট করে হতে পারে। তখন রান রেট বিবেচনা করা হবে। 

ওমান তাদের প্রথম ম্যাচটি ৩৮ বল হাতে রেখে ১০ উইকেটে জিতেছে। তাদের রান রেট ৩.১৩৫। বাংলাদেশের বিপক্ষে ৬ রানে জেতা স্কটল্যান্ডের রান রেট ০.৩০০। আর প্রথম ম্যাচ হারা টাইগারদের রান রেট -০.৩০০।

বাংলাদেশ একাদশ:

লিটন দাস, মোহাম্মদ নাঈম, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মেহেদী হাসান, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান।