বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক শ্রেণিতে ভর্তির প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা শুরু হয়েছে। বুধবার  সকাল ১০ টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাস্পাসে এই পরীক্ষা শুরু হয়। চার শিফটের এই প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।

করোনার কারণে এই প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা দুই দিনে চার শিফটে নেওয়া হবে। প্রথম দিনে বুধবার  সকাল ১০টা  থেকে ১১টা পর্যন্ত প্রথম শিফট এবং বেলা ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত দ্বিতীয় শিফটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত তৃতীয় শিফট এবং বেলা ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত চতুর্থ শিফটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

করোনা সংক্রান্ত বৈশ্বিক মহামারির কারণে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রাক-নির্বাচনী ও মূল ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে দুই ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় মেধার ভিত্তিতে প্রতি শিফট থেকে নির্বাচিত প্রার্থীদের আগামী ৬ নভেম্বর মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ প্রদান করা হবে। মূল ভর্তি পরীক্ষা লিখিত আকারে ২ ঘণ্টা ব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে।

প্রকৌশল, পুরকৌশল, যন্ত্রকৌশল, তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল এবং স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদসমূহের অধীনে ১২টি বিভাগে স্নাতক শ্রেণিতে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হবে। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় পার্বত্য চট্টগ্রাম ও অন্যান্য এলাকার ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠিভুক্ত প্রার্থীদের জন্য প্রকৌশল বিভাগসমূহ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য মোট তিনটি ও স্থাপত্য বিভাগে একটি সংরক্ষিত আসনসহ সর্বমোট ১ হাজার ২১৫টি আসনের বিপরীতে প্রার্থী সংখ্যা ১৮ হাজার ৫ জন। এর মধ্যে ছেলে শিক্ষার্থী ১২ হাজার ৩১৫ জন এবং মেয়ে শিক্ষার্থী ৫ হাজার ৬৯০ জন। মূলত এমসিকিউ প্রশ্নের মাধ্যমে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আগামী ২৮ অক্টোবর প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হতে পারে।

সকালে ভর্তি পরীক্ষার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুল জব্বার খাঁন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভর্তি কমিটিসমূহর সভাপতি এবং স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. খন্দকার সাব্বির আহমেদ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ।