রাজধানীর বনানীর রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের মামলার রায় বুধবার হচ্ছে না। ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭-এর সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আফরোজা ফারহানা আহমেদ অরেঞ্জ সমকালকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ আইনজীবী আব্দুল বাসেত মজুমদার মারা গেছেন। তার শ্রদ্ধায় আজ আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ থাকছে। তাই আজ এ মামলার রায় হচ্ছে না। রায় ঘোষণার তারিখ পরবর্তীতে জানানো হবে। 

এর আগে ঢাকার ২ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক আল মামুন গত ১২ অক্টোবর রায় ঘোষণার তারিখ নির্ধারণ করেন। রায় তৈরি না হওয়ায় ওইদিন ঘোষণা হয়নি বলে জানিয়েছিলেন ট্রাইব্যুনালের পিপি আফরোজা ফারহানা আহমেদ অরেঞ্জ।

গত ৩ অক্টোবর উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আসামিদের উপস্থিতিতে ঢাকার সাত নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোসাম্মৎ কামরুন্নাহার রায়ের জন্য দিন ধার্য করেছিলেন।

দুই তরুণীকে ধর্ষণের আলোচিত এই মামলার পাঁচ আসামি হলেন-আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদ, তার বন্ধু সাদমান সাকিব ও নাঈম আশরাফ ওরফে এইচএম হালিম, সাফাতের দেহরক্ষী রহমত আলী ও গাড়িচালক বিল্লাল হোসেন।

আসামিদের প্রত্যেকেই জামিনে ছিলেন। উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পর গত ৩ অক্টোবর সব আসামিদের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠানো হয়। চাঞ্চল্যকর এ মামলায় মোট ৪৭ জন সাক্ষীর মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষে মোট ২২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

২০১৭ সালের ২৮ মার্চ রাতে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানিয়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই দুই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে আসামি সাফাত আহমেদ ও তার বন্ধু নাঈম নাঈম আশরাফের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর ৬ মে বনানী থানায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।