টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের সংসদ সদস্য হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারীর পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে নির্বাচনী হলফনামায় শিক্ষাগত যোগ্যতার বিষয়ে মিথ্যা তথ্য (গড়মিল) দেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে।

বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে রিটটি মঙ্গলবার শুনানির জন্য কার্যতালিকাভুক্ত হয়েছে। ওই তালিকা অনুসারে চলতি সপ্তাহে রিটের শুনানি হতে পারে।

রিট সূত্রে জানা গেছে, টাঙ্গাইলের আওয়ামী লীগ নেতা মোখলেসুর রহমান বাদী হয়ে এ রিট দায়ের করেন। রিটে প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশগুপ্ত সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

রিট আবেদনে বলা হয়, টাঙ্গাইলের স্থানীয় বাসিন্দা ও আওয়ামী লীগ নেতা মোখলেসুর রহমান হলফনামায় এমপি হাসান ইমাম খানের শিক্ষাগত যোগ্যতায় গড়মিল আছে উল্লেখ করে গত ২৫ জুলাই স্পিকার বরাবর চিঠি দেন। ওই আবেদনে বিতর্কের বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য নির্বাচন কমিশনে পাঠানোর অনুরোধ করেছেন। কিন্তু ওই চিঠি এখনও নিষ্পত্তি করা হয়নি। এ প্রেক্ষাপটে হাসান ইমামের এমপি পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে তিনি হাইকোর্টে রিটটি দায়ের করেন।