কুমিল্লায় কার্যালয়ে ঢুকে গুলি চালিয়ে সহযোগীসহ কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল হত্যার রহস্য আজ-কালের মধ্যেই উদঘাটন হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

গত সোমবার বিকেল ৪টার দিকে নিজ কার্যালয়ে কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ আরও ৫ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বুধবার রাজধানীতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে (বিটিআরসি) এক সমঝোতা স্মারক সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় তিনি কুমিল্লার ঘটনা নিয়ে কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ বাহিনী চেষ্টা করছে। আশা করি আমরা আজ-কালকের মধ্যেই সমস্ত কিছুর রহস্য উদঘাটন করতে পারবো।

বিটিআরসির 'এনওসি অটোমেশন এবং আইএমইআই ডেটাবেইস' সিস্টেমের সঙ্গে এনটিএমসির 'ইন্টিগ্রেটেড ল'ফুল ইন্টারসেপশন সিস্টেম'র ইন্টিগ্রেশন বিষয়ক এ সমঝোতা স্মারক সই হয়।

চুক্তিতে সই করেন বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগের রেডিও কমিউনিকেশন স্টাডি অ্যান্ড রিসার্চ ডিরেক্টরের পরিচালক সোহেল রানা এবং বিটিএমসির অতিরিক্ত পরিচালক শাওগাতুল আলম।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সব অপরাধের ধরন পাল্টে যাচ্ছে ও যাবে। তখন সাইবার অপরাধ যে পরিমাণ আসবে, তা নিয়ে চিন্তাও করতে পারছি না। সে অনুযায়ী পুলিশ বাহিনীকে প্রস্তুত করা হচ্ছে। এনটিএমসিকেও আমরা সেভাবে তৈরি করছি। এ সমঝোতা স্মারক সইয়ের মাধ্যমে এনটিএমসি আরও শক্তিশালী হবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। আরও বক্তব্য দেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. খলিলুর রহমান, এনটিএমসির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান, বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহীদুল আলম, বিটিআরসির কমিশনার প্রকৌশলী এ কে এম শহীদুজ্জামান।