পাহাড় কাটার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ বদিউজ্জামানের স্ত্রী ফিরোজা বেগমসহ ১২ জনকে প্রায় সোয়া পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর।

রোববার শুনানি শেষে তাদের এ জরিমানা করা হয়। বদিউজ্জামানের স্ত্রী ফিরোজা বেগম ও তার অংশীদার আইয়ুব আলীকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তারা সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে তার পাশে সেমিপাকা ঘর নির্মাণ করছিলেন। অন্যদের বিরুদ্ধেও পাহাড় কেটে ভবন নির্মাণ করার অভিযোগ ছিল। এ নিয়ে ২৬ নভেম্বর দৈনিক সমকালের শেষ পৃষ্ঠায় ‘নাগিন পাহাড় সাবাড় করছেন ৩৪ ওঝা’ শিরোনামে সচিত্র সংবাদ প্রকাশিত হয়। যাদের জরিমানা করা হয়েছে তাদের সবার নাম ওই প্রতিবেদনে ছিল।

পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মোহাম্মদ নুরুল্লাহ নূরী বলেন, ‘নগরীর রৌফাবাদে পাহাড় কাটার অভিযোগে ফিরোজা বেগমসহ ১৭ জনকে নোটিশ করেছিলাম আমরা। এদের মধ্যে ১২ জন শুনানিতে অংশ নিয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এদের প্রত্যেককে জরিমানা করা হয়েছে। ফিরোজা বেগমের পক্ষে তার মনোনীত প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন শুনানিতে। আর কখনও পাহাড় কাটবেন না বলে সবাই অঙ্গীকারও করেছেন।’ যারা শুনানিতে হাজির হননি তাদের বিরুদ্ধে পরিবেশ অধিদপ্তর ফৌজদারি মামলা করবে বলে জানান তিনি।

পাহাড় কাটার অভিযোগে ফিরোজা বেগমকে ৪৫ হাজার ও তার অংশীদার আইয়ুব আলীকে ২৫ হাজার, এনামুল হককে ২৫ হাজার, ফারুক আহাম্মদকে ৫০ হাজার, মোহাম্মদ মুসাকে ৫০ হাজার, মোহাম্মদ বাদশা ও এমদাদ উল্লাহকে ৫০ হাজার, জামাল উদ্দিনকে ৫০ হাজার, নুরুল আলম সওদাগর ও মোহাম্মদ আবু বক্করকে ৫০ হাজার ও আবুল কালাম আজাদকে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ ছাড়া তরল বর্জ্যে দূষণ ছড়ানোর অভিযোগে বিডি সি ফুডস লিমিটেডের ব্যবস্থাপক ফারুক উদ্দিনকে ৩২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।