অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় যুব মহিলা লীগের বহিস্কৃত নেত্রী শামীমা নুর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান সুমনের বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেছেন আদালত। 

ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালত মঙ্গলবার আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে অভিযোগ গঠন করেন। 

একইসঙ্গে আগামী ২২ ডিসেম্বর সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ রাখা হয়েছে। চার্জ গঠনের মধ্যে দিয়ে এই মামলার বিচার শুরু হল।

সোয়া ৬ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত বছরের ৪ আগস্ট দুদকের উপপরিচালক শাহীন আরা মমতাজ এই মামলা দায়ের করেন। 

তদন্ত শেষে চলতি বছরের মার্চে পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়।

গত ৬ অক্টোবর ঢাকা মহানগর আদালতের বিচারক আসামিদের উপস্থিতিতে অভিযোগপত্র গ্রহণ করে বিচারের জন্য ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালতে পাঠিয়ে দেন। সেখানে পাপিয়া ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে পাঁচ কোটি ৮৪ লাখ ১৮ হাজার ৭১৮ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়।

গত বছর ২২ ফেব্রুয়ারি পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানকে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে ঢাকা ও নরসিংদীতে পাপিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে বিপুল সম্পদের খোঁজ পায় র‌্যাব। 

অভিযানে তাদের বাসা থেকে ৫৮ লাখ টাকা এবং মফিজুর রহমান সুমনের নামে হোন্ডা সিভিএ ২০১২ মডেলের একটি গাড়ি জব্দ করা হয়।

পাপিয়ার আইনজীবী শাখাওয়াত উল্যাহ ভূঁইয়া জানান, অস্ত্র মামলায় গত বছর এই দম্পতির ২০ বছরের কারাদণ্ড রায় হয়। এছাড়া জাল টাকার মামলায় দুটি অভিযোগপত্র দেওয়ায় পৃথক দুটি মামলা হিসেবে বিচার শুরু হয়। সব মিলিয়ে বর্তমানে তাদের বিরুদ্ধে ছয়টি মামলা রয়েছে।