আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, দেশে যে উন্নয়ন হচ্ছে তা জনগণের করের টাকায়ই হচ্ছে। ফলে করের টাকা ব্যয়ের বিষয়ে সংশ্নিষ্টদের আরও বেশি দায়িত্বশীল হতে হবে। জনগণের করের টাকার যাতে কোনো অপচয়, অপব্যবহার না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আয়োজিত 'রূপকল্প-২০৪১ বাস্তবায়ন ও আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে আয়করের ভূমিকা' শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন আইনমন্ত্রী। জাতীয় আয়কর দিবস উপলক্ষে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআরের প্রধান কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সেমিনারের বিশেষ অতিথি ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। এনবিআরের চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম এতে সভাপতিত্ব করেন।

আনিসুল হক দেশের বিত্তবান ও সম্পদশালী মানুষ এবং ব্যবসা ও শিল্পপ্রতিষ্ঠানের মালিকদের যথাযথভাবে কর পরিশোধের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, করদাতারা আয়কর দিয়ে গরিব-দুঃখী ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। কারণ, করের টাকাই দেশের উন্নয়নের মূল চালিকাশক্তি, যা স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কৃষি, যোগাযোগ ও পরিবহনসহ বিভিন্ন খাতে ব্যয় করা হয়। করদাতারা যত বেশি আয়কর দেবেন, দেশ তত বেশি এগিয়ে যাবে। আইনমন্ত্রী বলেন, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে রাজস্ব সংগ্রহ কমার কারণ ছিল করোনাভাইরাসের কারণে কর সংগ্রহে ছাড় দেওয়া। অন্যদিকে অর্থনীতিকে সচল রাখতে প্রণোদনাও দেওয়া হয়েছে।

এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, সরকারের উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনের জন্য রাজস্ব সংগ্রহ বাড়াতে হবে। এজন্য নতুন করদাতা সৃষ্টি করা ও করহার কমাতে হবে। তিনি বলেন, উপজেলা পর্যায়ে অনেকে আছেন যারা করযোগ্য আয় করেন। তাদের করজালে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। পাশাপাশি করের অডিট কার্যক্রম আরও নিয়মতান্ত্রিকভাবে করতে হবে।

এনবিআরের চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেন, আশির দশকে উন্নয়ন প্রকল্পের প্রায় শতভাগ বিদেশি ঋণ ও সহায়তার মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হতো। এখন তা অনেক কমে এসেছে। একটি দেশ যত উন্নত হয় ততই পরোক্ষ কর কমে, বাড়ে প্রত্যক্ষ কর। বর্তমানে মোট রাজস্বের ৪৫ দশমিক ৫০ শতাংশ আসছে পরোক্ষ কর থেকে। এটা আরও বাড়াতে হবে।

এনবিআরের সদস্য (আয়কর নীতি) আলমগীর হোসেন বলেন, রাজস্ব সংগ্রহ বাড়লেও এ কাজে এখনও বিনিয়োগ অনেক কম। বিনিয়োগ বাড়াতে হবে।

এনবিআরের আরেক সদস্য (মূসক নীতি) মাসুদ সাদিক বলেন, প্রত্যক্ষ কর বাড়াতে হলে ডিজিটাল কার্যক্রম বাড়াতে হবে।\হবাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন বলেন, শুধু উন্নয়ন নয়, সমাজের বৈষম্য কমানোর জন্য প্রত্যক্ষ কর বাড়াতে হবে। এজন্য তিনি এনবিআরের সংস্কার কার্যক্রমগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের পরামর্শ দেন।

অনুষ্ঠানে একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এনবিআরের সদস্য সামস উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, সরকার যেসব উন্নয়ন লক্ষ্য নিয়েছে তাতে প্রত্যক্ষ কর বাড়াতে হবে।

আইসিএবির সভাপতি মাহমুদুল হাসান খসরু বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের সবচেয়ে ঝুঁকিতে আছে বাংলাদেশ। ফলে এসব ঝুঁকিতে থাকা মানুষের জন্য ব্যয়ের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।