করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন সৌদি আরবেও শনাক্ত হয়েছে। দেশটিতে  ওমিক্রনের বিস্তার ঠেকাতে আন্তর্জাতিক ভ্রমণে বিধি-নিষেধের মধ্যেই প্রথমবার ওমিক্রন শনাক্তের কথা জানানো হলো। 

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) বলেছে, দেশে ওমিক্রনে আক্রান্ত হওয়া ব্যক্তি সৌদির নাগরিক। তাকে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে। তিনি সম্প্রতি উত্তর আফ্রিকার একটি দেশ থেকে সৌদিতে ফিরেছেন। খবর আল-জাজিরার। 

সোদিতে ওমিক্রন শনাক্তের ঘোষণাটি এমন সময় আসলো যখন টিকা তৈরিকারী কোম্পানি বায়োএনটেকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) উগুর শাহিন বলেছেন, টিকা নেওয়া ব্যক্তিরাও ওমিক্রনে আক্রান্ত হতে পারেন। তবে টিকা গুরুতর অসুস্থ হওয়া থেকে সুরক্ষা দিবে। 

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য উপদেষ্টাদের একটি প্যানেল দেশটির ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানির তৈরি মুখে খাওয়ার করোনা বড়ি পর্যবেক্ষণ করেছেন। চলতি সপ্তাহের শেষের দিকে বড়িটি অনুমোদন দেওয়া হতে পারে।

আর বিজ্ঞানীরা ওমিক্রনের প্রভাব সম্পর্কে জানতে কাজ করে যাচ্ছেন। গত সপ্তাহে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম ওমিক্রন শনাক্ত হয়।  তবে এটা নিশ্চিত হওয়া যায়নি এই ধরনটি প্রথম কোথায় বা কখন উৎপত্তি হয়েছে। তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি দেশ থেকে ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। যদিও নতুন এই ধরনের বিস্তার ঠেকাতে নেওয়া বিধি-নিষেধগুলো যেন যুক্তিসঙ্গত হয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) সে আহ্বান জানিয়েছে। 

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথমবার ওমিক্রন শনাক্ত হয়। এরপর বতসোয়না, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, বেলজিয়াম, ইতালি, চেক প্রজাতন্ত্র, হংকং, অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা নতুন এই ধরনটি শনাক্ত হয়েছে।